August 1, 2021

Jagobahe24.com

সত্যের সাথে আপোসহীন

আদালতের ১৪৪ ধারা অমান্য করে কালীগঞ্জে কৃষকের সেচঘর পুড়িয়ে দিল দুর্বৃত্তরা

ঝিনাইদহঃ
ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে কৃষকের সেচঘর পুড়িয়ে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। মঙ্গলবার দিবাগত গভির রাতে কালীগঞ্জ উপজেলার কাষ্টভাঙ্গা ইউনিয়নের সাদিকপুর গ্রামের মাঠে এ ঘটনা ঘটে। এই অগভির নলকূপ স্থাপন নিয়ে দু’পক্ষের সৃষ্ট বাদানুবাদের প্রেক্ষিতে ১৪৪ ধারা জারি করেছে আদালত। ৩০ ডিসেম্বর ঝিনাইদহের বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতের বিচারক মোঃ আরিফুজ্জামান ১৪৪ ধারা জারি করেন। বর্তমানে ইরি ধানের মৌসুম শুরু হওয়ার স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের মধ্যস্থতায় উভয়পক্ষ নলকূপ দিয়ে সেচকাজ করছে। পুড়ে যাওয়া সেচঘরের মালিক উপজেলার তেতুলবাড়িয়া গ্রামের আতিয়ার রহমানের ছেলে রকিবুল ইসলাম জানান, পাশর্^বর্তি সাদিকপুর গ্রামের গোপালচন্দ্র ঘোষের একটি অগভীর নলকূপ লীজ নিয়ে কৃষি জমিতে সেচ কাজ করে আসছিলাম। নলকূপটি একই এলাকার সাতগাছিয়া গ্রামের মাঠে অবস্থিত। সম্প্রতি সাতগাছিয়া গ্রামের মৃত খোদা বকস এর ছেলে মোঃ আবদুল ওহাব ওই নলকূপের মাত্র ৩০০ ফুট দূরে আরো একটি নলকূপ স্থাপনের করে। নিয়ম রয়েছে সেচ কাজে ব্যবহৃত একটি নলকূপ থেকে আরেকটি নলকূপের দুরত্ব কমপক্ষে ৭৫০ ফুট হতে হবে। আমি জীবনে নিরাপত্তা চেয়ে কালীগঞ্জ থানায় একটি সাধারন ডায়েরী করি। ক্ষতিগ্রস্ত কৃষক রকিবুল ইসলাম বলেন, বিএডিসি (সেচ) ইলেক্ট্রিশিয়ান গিয়াস উদ্দীন উৎকোচ নিয়ে নিয়মের বাইরে আমার নলকূপের পাশের আরো একটি নলকূপের লাইসেন্স ও বিদ্যুৎ সংযোগ দিয়েছে। যদিও বিএডিসি (সেচ) ইলেক্ট্রিশিয়ান গিয়াস উদ্দীন উৎকোচের বিষয়টি অস্বিকার করে জানান, সেখানে আগেই আরো একটি নলকূপ রয়েছে তা কেউ জানায়নি। জানালে অপর নলকূপ স্থাপনের অনুমতি পেত না।