December 5, 2021

Jagobahe24.com

সত্যের সাথে আপোসহীন

কলম্বোর রেসকোর্স স্টেডিয়ামে শনিবার ২-১ ব্যবধানে মালদ্বীপকে হারিয়েছে বাংলাদেশ। জামাল ভূঁইয়া ও তপু বর্মণের গোলে দুর্দান্ত জয় তুলে নিয়েছে টাইগাররা। এ জয়ে চার জাতি টুর্নামেন্টের ফাইনালের পথে এক পা দিয়ে রাখল তারা। অবশেষে এলো সেই মাহেন্দ্রক্ষণ। দীর্ঘ ১৮ বছর পর মালদ্বীপকে হারাল বাংলাদেশ। এ জয়ে গত সাফে হারের মধুর প্রতিশোধ তুলে নিল বাংলাদেশ। পূর্ণ ৩ পয়েন্ট নিয়ে শ্রীলঙ্কার চার জাতি টুর্নামেন্টের শীর্ষে উঠে গেল মারিও লেমসের বাহিনী। কলম্বোর রেসকোর্স স্টেডিয়ামে শনিবার ২-১ ব্যবধানে মালদ্বীপকে হারিয়েছে বাংলাদেশ। জামাল ভূঁইয়া ও তপু বর্মণের গোলে দুর্দান্ত জয় তুলে নিয়েছে টাইগাররা। এ জয়ে ফাইনালের পথে এক পা দিয়ে রাখল তারা। এর আগে ২০০৩ সালে মালদ্বীপকে হারিয়েছিল বাংলাদেশ। প্রথম ম্যাচের দুই পরিবর্তন নিয়ে শনিবার মালদ্বীপের বিপক্ষে স্কোয়াড সাজিয়েছেন হেড কোচ মারিও লেমস। র‌্যাঙ্কিংয়ে এগিয়ে থাকা মালদ্বীপের সঙ্গে দুটি পরিবর্তন আসে ডিফেন্সে। ইয়াসিনের পরিবর্তে দলে ঢোকেন রহমত। আর সাদকে তুলে মূল একাদশে রাখা হয় ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার হৃদয়কে। পাঁচ ডিফেন্ডারের কৌশল নিয়ে বাজিমাত করেছেন মারিও লেমস। পরিকল্পনা ছিল আক্রমণে থাকা মালদ্বীপের ফাকফোঁকরকে কাজে লাগানো। ম্যাচে তার কার্যকরটাও সুন্দরভাবে করেছে বাংলাদেশ। পুরো ম্যাচে গোলবারে ভালো কোনো শটই নিতে পারেনি মালদ্বীপ। রক্ষণ নিশ্ছিদ্র রেখেছে তপু-সুশান্তর-রহমতরা। ম্যাচের শুরু থেকে অনুমেয়ভাবে বল দখল বেশি থাকে মালদ্বীপের। তবে সুযোগ পেলেই আক্রমণের চেষ্টা অব্যাহত রাখে বাংলাদেশ। তারই ধারাবাহিকতায় ম্যাচের ১৩ মিনিটে অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়ার গোলে লিড নেয় বাংলাদেশ। প্রায় ৮ বছর সিনিয়র জাতীয় দলের ক্যারিয়ারে এটাই জামালের প্রথম গোল। অবশেষে নিজের ৫৯তম ম্যাচে নিজের প্রথম গোলের দেখা পেলেন এই ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার। রহমত মিয়ার লং থ্রো থেকে সিক্স ইয়ার্ডের ভেতরে বল পড়ে চলে যায় ওত পেতে থাকা জামালের সামনে। টোকায় বলটা জালে জড়াতে এতটুকু ভুল করেননি জামাল ভূঁইয়া।

কলম্বোর রেসকোর্স স্টেডিয়ামে শনিবার ২-১ ব্যবধানে মালদ্বীপকে হারিয়েছে বাংলাদেশ। জামাল ভূঁইয়া ও তপু বর্মণের গোলে দুর্দান্ত জয় তুলে নিয়েছে টাইগাররা। এ জয়ে চার জাতি টুর্নামেন্টের ফাইনালের পথে এক পা দিয়ে রাখল তারা। অবশেষে এলো সেই মাহেন্দ্রক্ষণ। দীর্ঘ ১৮ বছর পর মালদ্বীপকে হারাল বাংলাদেশ। এ জয়ে গত সাফে হারের মধুর প্রতিশোধ তুলে নিল বাংলাদেশ। পূর্ণ ৩ পয়েন্ট নিয়ে শ্রীলঙ্কার চার জাতি টুর্নামেন্টের শীর্ষে উঠে গেল মারিও লেমসের বাহিনী। কলম্বোর রেসকোর্স স্টেডিয়ামে শনিবার ২-১ ব্যবধানে মালদ্বীপকে হারিয়েছে বাংলাদেশ। জামাল ভূঁইয়া ও তপু বর্মণের গোলে দুর্দান্ত জয় তুলে নিয়েছে টাইগাররা। এ জয়ে ফাইনালের পথে এক পা দিয়ে রাখল তারা। এর আগে ২০০৩ সালে মালদ্বীপকে হারিয়েছিল বাংলাদেশ। প্রথম ম্যাচের দুই পরিবর্তন নিয়ে শনিবার মালদ্বীপের বিপক্ষে স্কোয়াড সাজিয়েছেন হেড কোচ মারিও লেমস। র‌্যাঙ্কিংয়ে এগিয়ে থাকা মালদ্বীপের সঙ্গে দুটি পরিবর্তন আসে ডিফেন্সে। ইয়াসিনের পরিবর্তে দলে ঢোকেন রহমত। আর সাদকে তুলে মূল একাদশে রাখা হয় ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার হৃদয়কে। পাঁচ ডিফেন্ডারের কৌশল নিয়ে বাজিমাত করেছেন মারিও লেমস। পরিকল্পনা ছিল আক্রমণে থাকা মালদ্বীপের ফাকফোঁকরকে কাজে লাগানো। ম্যাচে তার কার্যকরটাও সুন্দরভাবে করেছে বাংলাদেশ। পুরো ম্যাচে গোলবারে ভালো কোনো শটই নিতে পারেনি মালদ্বীপ। রক্ষণ নিশ্ছিদ্র রেখেছে তপু-সুশান্তর-রহমতরা। ম্যাচের শুরু থেকে অনুমেয়ভাবে বল দখল বেশি থাকে মালদ্বীপের। তবে সুযোগ পেলেই আক্রমণের চেষ্টা অব্যাহত রাখে বাংলাদেশ। তারই ধারাবাহিকতায় ম্যাচের ১৩ মিনিটে অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়ার গোলে লিড নেয় বাংলাদেশ। প্রায় ৮ বছর সিনিয়র জাতীয় দলের ক্যারিয়ারে এটাই জামালের প্রথম গোল। অবশেষে নিজের ৫৯তম ম্যাচে নিজের প্রথম গোলের দেখা পেলেন এই ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার। রহমত মিয়ার লং থ্রো থেকে সিক্স ইয়ার্ডের ভেতরে বল পড়ে চলে যায় ওত পেতে থাকা জামালের সামনে। টোকায় বলটা জালে জড়াতে এতটুকু ভুল করেননি জামাল ভূঁইয়া।

দীর্ঘ ১৮ বছর পর মালদ্বীপকে হারাল বাংলাদেশ।

কলম্বোর রেসকোর্স স্টেডিয়ামে শনিবার ২-১ ব্যবধানে মালদ্বীপকে হারিয়েছে বাংলাদেশ। জামাল ভূঁইয়া ও তপু বর্মণের গোলে দুর্দান্ত জয় তুলে নিয়েছে টাইগাররা। এ জয়ে চার জাতি টুর্নামেন্টের ফাইনালের পথে এক পা দিয়ে রাখল তারা।

অবশেষে এলো সেই মাহেন্দ্রক্ষণ। দীর্ঘ ১৮ বছর পর মালদ্বীপকে হারাল বাংলাদেশ।

এ জয়ে গত সাফে হারের মধুর প্রতিশোধ তুলে নিল বাংলাদেশ। পূর্ণ ৩ পয়েন্ট নিয়ে শ্রীলঙ্কার চার জাতি টুর্নামেন্টের শীর্ষে উঠে গেল মারিও লেমসের বাহিনী।

কলম্বোর রেসকোর্স স্টেডিয়ামে শনিবার ২-১ ব্যবধানে মালদ্বীপকে হারিয়েছে বাংলাদেশ। জামাল ভূঁইয়া ও তপু বর্মণের গোলে দুর্দান্ত জয় তুলে নিয়েছে টাইগাররা। এ জয়ে ফাইনালের পথে এক পা দিয়ে রাখল তারা।

এর আগে ২০০৩ সালে মালদ্বীপকে হারিয়েছিল বাংলাদেশ।

প্রথম ম্যাচের দুই পরিবর্তন নিয়ে শনিবার মালদ্বীপের বিপক্ষে স্কোয়াড সাজিয়েছেন হেড কোচ মারিও লেমস। র‌্যাঙ্কিংয়ে এগিয়ে থাকা মালদ্বীপের সঙ্গে দুটি পরিবর্তন আসে ডিফেন্সে। ইয়াসিনের পরিবর্তে দলে ঢোকেন রহমত। আর সাদকে তুলে মূল একাদশে রাখা হয় ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার হৃদয়কে।

পাঁচ ডিফেন্ডারের কৌশল নিয়ে বাজিমাত করেছেন মারিও লেমস। পরিকল্পনা ছিল আক্রমণে থাকা মালদ্বীপের ফাকফোঁকরকে কাজে লাগানো।

ম্যাচে তার কার্যকরটাও সুন্দরভাবে করেছে বাংলাদেশ। পুরো ম্যাচে গোলবারে ভালো কোনো শটই নিতে পারেনি মালদ্বীপ। রক্ষণ নিশ্ছিদ্র রেখেছে তপু-সুশান্তর-রহমতরা।

ম্যাচের শুরু থেকে অনুমেয়ভাবে বল দখল বেশি থাকে মালদ্বীপের। তবে সুযোগ পেলেই আক্রমণের চেষ্টা অব্যাহত রাখে বাংলাদেশ।

তারই ধারাবাহিকতায় ম্যাচের ১৩ মিনিটে অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়ার গোলে লিড নেয় বাংলাদেশ। প্রায় ৮ বছর সিনিয়র জাতীয় দলের ক্যারিয়ারে এটাই জামালের প্রথম গোল। অবশেষে নিজের ৫৯তম ম্যাচে নিজের প্রথম গোলের দেখা পেলেন এই ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার।

রহমত মিয়ার লং থ্রো থেকে সিক্স ইয়ার্ডের ভেতরে বল পড়ে চলে যায় ওত পেতে থাকা জামালের সামনে। টোকায় বলটা জালে জড়াতে এতটুকু ভুল করেননি জামাল ভূঁইয়া।