January 25, 2022

Jagobahe24.com

সত্যের সাথে আপোসহীন

লঙ্কান ঘূর্ণিজালে হোয়াইটওয়াশ ওয়েস্ট ইন্ডিজ

লঙ্কান ঘূর্ণিজালে হোয়াইটওয়াশ ওয়েস্ট ইন্ডিজ

লঙ্কান ঘূর্ণিজালে হোয়াইটওয়াশ ওয়েস্ট ইন্ডিজ

দুই স্পিনার রমেশ মেন্ডিস ও লাসিথ এম্বুলদেনিয়ার আগুন ঝড়ানো বোলিং নৈপূণ্যে সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ টেস্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ১৬৪ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়েছে স্বাগতিক শ্রীলঙ্কা। এই জয়ে দুই ম্যাচের টেস্ট ২-০ ব্যবধানে জিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হোয়াইটওয়াশের লজ্জা দিয়েছে স্বাগতিক দল। সিরিজের প্রথম টেস্ট তারা ১৮৭ রানে জিতেছিল। টেস্ট সিরিজটি আইসিসি বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের অন্তুর্ভুক্ত। তাই এই সিরিজ থেকে দুই জয়ে পূর্ণ ২৪ পয়েন্ট পেয়েছে শ্রীলঙ্কা।

এতে ২ ম্যাচে ২৪ পয়েন্ট নিয়ে তারা টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের টেবিলের শীর্ষে। ৪ ম্যাচে ১ জয় ও ৩ হারে ১২ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের চতুর্থস্থানে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। গলে ধনাঞ্জয়া ডি সিলভার অনবদ্য সেঞ্চুরিতে চতুর্থ দিন শেষে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ৮ উইকেটে ৩২৮ রান করেছিল শ্রীলঙ্কা। ২ উইকেট হাতে নিয়ে তারা এগিয়ে ছিল ২৭৯ রানে। ১৫৩ রানে অপরাজিত থেকে দিন শেষ করেন ধনাঞ্জয়া। ১১০ বলে ২৫ রানে অপরাজিত ছিলেন এম্বুলদেনিয়া। আজ পঞ্চম ও শেষ দিনে ব্যক্তিগত ৩৯ রানে এম্বুলদেনিয়া আউট হলে, ৯ উইকেটে ৩৪৫ রানে ইনিংস ঘোষনা করে শ্রীলঙ্কা। জয়ের জন্য ২৯৭ রানের টার্গেট পায় ক্যারিবিয়রা।

১৫৫ রানে অপরাজিত থাকেন ধনাঞ্জয়া। তার ২৬২ বলের ইনিংসে ১১টি চার ও ২টি ছক্কা ছিল। ওয়েস্ট ইন্ডিজের ভেরাসামি পারমল ৩টি, রোস্টন চেজ ২টি ও অধিনায়ক ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েট-জেসন হোল্ডার ১টি করে উইকেট নেন। ২৯৭ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে এম্বুলদেনিয়া ও রমেশের ঘুর্ণিতে দিশেহারা হয়ে পড়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ব্যাটাররা। ৫৬.১ ওভার ব্যাট করে ১৩২ রানেই তারা অল-আউট হয়ে যায়। ওয়েস্ট ইন্ডিজের ১০ উইকেট ভাগাভাগি করে নেন এম্বুলদেনিয়া ও রমেশ।

এম্বুলদেনিয়া ৩৫ রানে ও রমেশ ৬৬ রানে ৫টি করে উইকেট নেন। ১৩ ম্যাচের টেস্ট ক্যারিয়ারে পঞ্চমবারের মতো ৫ উইকেট নিলেন এম্বুলদেনিয়া। অন্যদিকে ৪ ম্যাচের টেস্ট ক্যারিয়ারে দ্বিতীয়বারের মত পাঁচ বা ততোধিক উইকেট নেন রমেশ। প্রথম ইনিংসে ৬টি এবং দ্বিতীয় ইনিংসে ৪টিসহ টেস্ট ক্যারিয়ারে প্রথমবারের মতো রমেশ ম্যাচে ১০ উইকেট শিকার করেন। দ্বিতীয় ইনিংসে ওয়েস্ট ইন্ডিজের পক্ষে সর্বোচ্চ ৪৪ রান করেন এনক্রুমার বোনার। এরপর জার্মেই ব্ল্যাকউড ৩৬ ও শাই হোপ ১৬ রান করেন। ম্যাচ সেরা হয়েছেন শ্রীলঙ্কার ধনাঞ্জয়া ও সিরিজ সেরা হন রমেশ।