October 24, 2021

Jagobahe24.com

সত্যের সাথে আপোসহীন

পীরগাছায় ছাত্রদলের বিবাদমান দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, চরম উত্তেজনা

পীরগাছায় ছাত্রদলের বিবাদমান দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, চরম উত্তেজনা

পীরগাছায় ছাত্রদলের বিবাদমান দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, চরম উত্তেজনা

পীরগাছা (রংপুর) প্রতিনিধি॥
রংপুরের পীরগাছায় বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা ও সাবেক প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের ৪০তম শাহাদত বার্ষিকীর অনুষ্ঠান নিয়ে ছাত্রদলের বিবাদমান দুই পক্ষের নেতাকর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ মঙ্গলবার সকালে উপজেলার স্টেশন রোডস্থ বিএনপির দলীয় কার্যালযে এ ঘটনা ঘটে। এনিয়ে দুই গ্রপের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। পুনরায় যে কোন মুর্হুতে সংঘর্ষের আশংকা করছে নেতাকর্মীরা।
এদিকে হাতাহাতির পরেই পীরগাছা উপজেলা বিএনপি কার্যালয়ের সামনে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।
প্রত্যক্ষদর্শী নেতাকর্মী ও পুলিশ জানায়, দলটির প্রতিষ্ঠাতা ও সাবেক প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের শাহাদত বার্ষিকী উপলক্ষে মঙ্গলবার দুই পক্ষই কর্মসূচী ঘোষণা করে। রংপুর জেলা ছাত্রদলের সদ্য অব্যাহতিপ্রাপ্ত সভাপতিসহ একাংশের ঘোষিত কমিটির আহবায়ক মোফাচ্ছেরুল ইসলাম মিলন মঙ্গলবার সকালে ও কেন্দ্রীয় ঘোষিত কমিটির পীরগাছা উপজেলা ছাত্রদলের আহবায়ক লোকমান হোসেন একই দিন বিকেলে দলীয় কার্যালয়ে আলোচনা সভার আয়োজন করে। এদিন সকালে মিলনের অনুষ্ঠান শুরু হওয়ার আগেই লোকমান তার লোকজনকে নিয়ে সেখানে পরিস্থিতি দেখতে যান। এসময় মিলনের পক্ষের সাথে কথাকাটাকাটি ও বাকবিত-া শুরু হয়। একপর্যায়ে একপক্ষ লাঠি বের করে আঘাত করলে উভয় পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়। পরে রংপুর জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ও পীরগাছা উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম রাঙ্গার মধ্যস্থতায় সেখানে দুই পক্ষকে বসিয়ে সমঝোতার চেষ্টা করা হয়। এ ঘটনায় সেখানে উভয় পক্ষের নেতাকর্মীরা মহড়া দেয়।
বিষয়টি নিশ্চিত করেন পীরগাছা থানার ওসি আজিজুল ইসলাম। তিনি জানান, দলীয় বিভিন্ন পক্ষ থাকায় আলোচনা সভা নিয়ে বিএনপি অফিসে উত্তেজনার খবর পেয়ে সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। কেউ আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি অবনতির চেষ্টা করলে তা কঠোরভাবে দমন করা হবে। বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।
দলীয় সূত্রে জানা গেছে, গত ৩১ মার্চ রংপুর জেলার পূর্নাঙ্গ কমিটির সাথে পীরগাছা উপজেলা কমিটি ঘোষণা করে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কমিটি। দলটির কেন্দ্রীয় সভাপতি ফজলুর রহমান খোকন ও সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামল এই কমিটির অনুমোদন দেন। কেন্দ্র ঘোষিত ওই কমিটিতে পীরগাছা উপজেলায় লোকমান হোসেনকে আহবায়ক ও মোফাচ্ছিরুল ইসলাম মিলনকে সদস্য সচিব করে ২১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটির ঘোষণা দেন। এর পর থেকেই দলের একটি পক্ষ কেন্দ্রের নির্দেশনা অমান্য করে পীরগাছা উপজেলায় জেলা কমিটির সভাপতিসহ কয়েকজন নেতার স্বাক্ষরে গত ৫ এপ্রিল রাতে পাল্টা কমিটি দেয়া হয়। তার পর থেকে তৃণমূল পর্যায়ে বিরুপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়। সেই সাথে চরম উত্তেজনা ও অসস্তোষ দেখা দেয়। দলীয় শৃংঙ্খলা ভঙ্গের কারণে জেলা কমিটির সভাপতি মনিরুজ্জামান হিজবুলকে অব্যাহতি দেয় কেন্দ্রীয় কমিটি। সেই সাথে জেলার দুই যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও সাংগঠনিক সম্পাদককে শোকজ করে।