July 26, 2021

Jagobahe24.com news portal

Real time news update

জাতীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি ফরিদা ইয়াছমিন, সম্পাদক ইলিয়াস খান

জাতীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি ফরিদা ইয়াছমিন, সম্পাদক ইলিয়াস খান

জাতীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি ফরিদা ইয়াছমিন, সম্পাদক ইলিয়াস খান

জাতীয় প্রেসক্লাবের ব্যবস্থাপনা কমিটির ২০২১-২২ মেয়াদের নির্বাচনে সভাপতি পদে বিজয়ী হয়েছেন দৈনিক ইত্তেফাকে কর্মরত সাংবাদিক ফরিদা ইয়াসমিন। আর সাধারণ সম্পাদক পদে বিজয়ী হয়েছেন ইলিয়াস খান।

বৃহস্পতিবার (৩১ ডিসেম্বর) রাতে এ ফলাফল ঘোষণা করা হয়।

মুক্তিযুদ্ধের চেতনার সাংবাদিক ফোরামের প্রার্থী ফরিদা ইয়াসমিন ৫৮১টি ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী কামাল উদ্দিন সবুজ ৩৯৫টি ভোট পেয়েছেন। এছাড়া সাধারণ সম্পাদক পদে ইলিয়াস খান ৫৬৬টি ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ওমর ফারুক ৩৯৩টি ভোট পেয়েছেন।

এদিকে সিনিয়র সহ-সভাপতি পদে হাসান হাফিজ, সহ-সভাপতি পদে রেজোয়ানুল হক রাজা, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক  পদে মাঈনুল আলম ও কোষাধ্যক্ষ পদে শাহেদ চৌধুরী বিজয়ী হয়েছেন।

সদস্য পদে বিজয়ী হয়েছেন, সদস্য -১ আয়ুব ভূঁইয়া, সদস্য -২ জাহিদুজ্জামান ফারুক, সদস্য -৩ ভানুরঞ্জন চক্রবর্তী, সদস্য -৪ রহমান মুস্তাফিজ, সদস্য – ৫ রেজানুর রহমান, সদস্য -৬ শাহনাজ সিদ্দিকী সোমা, সদস্য -৭ সৈয়দ আবদাল আহমদ, সদস্য -৮ কাজী রওনা হোসেন, সদস্য -৯ বখতিয়ার রানা ও সদস্য -১০ শাহনাজ বেগম পলি।

এর আগে বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে বিরতিহীনভাবে ভোটগ্রহণ চলে। এতে ফরিদা ইয়াসমিন-ওমর ফারুক পরিষদ ও সবুজ-ইলিয়াস পরিষদ নামে দুটি প্যানেল প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে। এ দুটি প্যানেলের ৩৪জন ১৭টি পদেও প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। এছাড়া কয়েকটি পদে প্যানেলের বাইরে আরো সাতজন প্রার্থী ছিলেন। 

নির্বাচনের যেসব প্রার্থীরা অংশ নেন

সভাপতি পদে কামাল উদ্দিন সবুজ ও ফরিদা ইয়াসমিন, সিনিয়র সহ-সভাপতি পদে আজিজুল ইসলাম ভূঁইয়া, হাসান হাফিজ ও রাশেদ চৌধুরী, সহ-সভাপতি পদে খন্দকার হাসনাত করিম ও রেজোয়ানুল হক রাজা ও সাধারণ সম্পাদক পদে ইলিয়াস খান ও মো. ওমর ফারুক প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন।

দুটি যুগ্ম সম্পাদক পদে কল্যাণ সাহা, নাজমুল আহসান, মাঈনুল আলম, মো. আশরাফ আলী ও সৈয়দ আলী আসফার,  কোষাধ্যক্ষ পদে শাহেদ চৌধুরী ও সালাহউদ্দীন আহমাদ বাবলু প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন।

১০টি সদস্য পদে ২৫ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারীরা ছিলেন। তারা হলেন- আইয়ুব ভূঁইয়া, কাজী রওনাক হোসেন, কামরুল হাসান দর্পন, কে এম শহীদুল হক, জাহিদুজ্জামান ফারুক, জিয়াউদ্দিন সাইমুম, বখতিয়ার রানা, বিশ্বজিৎ দত্ত, ভানুরঞ্জন চক্রবর্তী, নির্মল চক্রবর্তী, নুরুননবী রবি, মহিউদ্দিন সরকার, মোস্তফা কামাল মজুমদার, মো. গোলাম কিবরিয়া, মো. ফেরদাউস মোবারক, রহমান মুস্তাফিজ, রফিক আহমেদ মুফদি (মুফদি আহমেদ), রেজানুর রহমান, শামসুদ্দিন আহমেদ চারু, শাহনাজ বেগম পলি, শাহানাজ সিদ্দিকী সোমা, শামসুল হক দুররানী, সলিমউল্লাহ সেলিম, সেবীকা রানী ও সৈয়দ আবদাল আহমদ।