April 13, 2021

Jagobahe24.com news portal

Real time news update

ঝিনাইদহের বয়ড়াতলা গ্রামে বখাটেদের ভাংচুর ও লুটপাট,

ঝিনাইদহের বয়ড়াতলা গ্রামে বখাটেদের ভাংচুর ও লুটপাট,

ঝিনাইদহে টিসিবির পেঁয়াজ কান্ড!

টিসিবির মালামাল বিতরনে প্রতারণা, জনপ্রতি ১২ কেজি পেয়াজ না নিলে দিচ্ছেন না তেল, চিনি ও ডাল!

ঝিনাইদহঃ
জনপ্রতি ১২ কেজি পেয়াজ নিতে হবে। নইলে তেল, চিনি ও ডাল দেওয়া যাবে না। টিসিবির পন্য বিক্রয়ে ৪ শত ৪০ টাকার প্যাকেজ করা হয়েছে। ওই প্যাকেজে বাধ্যতামুলক ১২ কেজি বিদেশি পিঁয়াজ, ১ কেজি চিনি, ১ কেজি ডাল ও ২ লিটার সয়াবিন তেল নিতে হবে। শুক্রবার বিকাল থেকে ট্রাকে করে কালীগঞ্জে টিসিবির পন্য বিক্রি করতে আসা ঝিনাইদহের মানিক ট্রেডার্স নামে ডিলারের লোকজন এমন ঘোষনা দিয়ে এক ”পেয়াজ” কান্ড ঘটিয়েছেন। তবে কিছু সময় পর এ নিয়ে ক্রেতারা বিষয়টি কালীগঞ্জ ইউএনওকে অবহিত করার বিষয়টি আঁচ করতে পেরেই অল্প কিছু পন্য বিক্রি করে তারা ট্রাক নিয়ে সটকে পড়েন। এভাবেই কালীগঞ্জ সহ জেলার টিসিবির ডিলাররা পন্য বিক্রিতে সাধারন ক্রেতাদের সাথে প্রতারনা করে চলেছেন। ভুক্তভোগীদের মধ্যে ফিরোজ আহম্মেদ নামে এক ক্রেতা জানান, কালীগঞ্জ শহরের বৈশাখী মোড়ে টিসিবির পন্য বিক্রি করতে আসেন ডিলার মানিক ট্রেডাস। এ সময় তারা প্রতিজন ক্রেতাকে বাধ্যতামুলক ১২ কেজি পিয়াজ নিতে হবে বলে জানায়। এবং যদি কেহ পেয়াজ না নেয় তাহলে তাদের অন্নান্য পন্য তেল, চিনি ও ডাল বিক্রি করবে না বলে ঘোষনা দেয়। এসব কথা শুনে উপস্থিত ক্রেতাদের মধ্যে অনেকেই পন্য না নিয়েই খালী হাতে ফিরে যায়। কিন্তু কেউ কেউ পন্য না কিনতে পেয়ে ডিলারের লোকজনের সাথে বিতর্কে জড়িয়ে পড়েন। এমন পরিস্থিতি ও জটলা দেখে সেখানে এগিয়ে আসেন গনমাধ্যমের এক কর্মী। তিনি তাৎক্ষনিক ওই বিষয়টি কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে ফোন করে জানতে পারেন, জনপ্রতি ৫ কেজি পন্য বিক্রির নিয়ম রয়েছে। পন্য বিক্রয়ে প্যাকেজ বা বাধ্যতামুলক করা হয়নি। এরিমধ্যে প্রশাসনকে অবহতির বিষয়টি আঁচ করতে পেরে সু-চতুুুর ডিলারের লোকজন তড়িঘড়ি করে তাদের কিছু পন্য ক্রেতাকে দিয়ে ঘটনাস্থল থেকে সটকে পড়েন। এমন বিষয়টি নিয়ে টিসিবির ডিলার মানিক ট্রেডাসের স্বর্তাধিকারী শরিফুল ইসলামের সাথে মুঠোফোনে কথা বললে তিনি জানান, পেয়াজ বিক্রি না হওয়াতে গোডাউনে থেকে নষ্ট হচ্ছে। এজন্য আমরা ক্রেতাদের পেয়াজ নিতে ৪৪০ টাকার প্যাকেজ করেছি। আর ঝিনাইদহ শহরের টিসিবির ডিলার হয়ে কালীগঞ্জ উপজেলা শহরে পন্য বিক্রি করার অনুমতি আছে কি ? এমন প্রশ্নের উত্তরে বলেন, টিসিবির কর্মকর্তা রানা সাহেব তাকে বাইরের উপজেলাতে গিয়ে পন্য বিক্রির অনুমতি দিয়েছেন। এ বিষয়ে জানতে কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সূবর্না রানী সাহার সাথে কথা বললে তিনি জানান, একজন ক্রেতার নিকট ৫ কেজির বেশি টিসিবির পন্য বিক্রি করা যাবে না। প্রতি ক্রেতাদের ১২ কেজি পিঁয়াজ নিতে হবে এমন কোন নিয়ম নেই। এমন অনিয়মের বিষয়ে তিনি প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা নিবেন বলে জানান।