October 24, 2021

Jagobahe24.com

সত্যের সাথে আপোসহীন

ঝিনাইদহে লোকাল বাসে ভাড়া দ্বিগুন অথচ যাত্রি তিনগুন, দেখে না প্রশাসন!

ঝিনাইদহে লোকাল বাসে ভাড়া দ্বিগুন অথচ যাত্রি তিনগুন, দেখে না প্রশাসন!

ঝিনাইদহে লোকাল বাসে ভাড়া দ্বিগুন অথচ যাত্রি তিনগুন, দেখে না প্রশাসন!

ঝিনাইদহ-
করোনা কালীন মহামারিতে ঝিনাইদহের লোকাল বাসে ভাড়া আদায় করা হচ্ছে দ্বিগুন। কিন্তু সরাকারী নিশেধাজ্ঞা অমান্য করে দ্বিগুনভাড়া আদায়ের পরেও বাসে যাত্রী তোলা হচ্ছে তিনগুন। এমন অভিযোগ করেছে একাধিক বাসের যাত্রীরা। এব্যাপারে ঝিনাইদহ প্রশাসন নিরব ভুমিকা পালন করছে মর্মে অভিযোগ উঠেছে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ঝিনাইদহ-চুয়াডাঙ্গা, হরিনাকুন্ডু, শৈলকুপা, কালীগঞ্জ ও কোটচাঁদপুরে চলাচল করা লোকাল বাস, লেগুনা, সিএনজি ও ইজিবাইকসহ অন্যান্য যাত্রী বহনকরা গাড়িতে সরাকারী নিশেধাজ্ঞা অমান্যকরে দিগুন টাকা ভাড়া আদায় করার পরেও যাত্রী তুলছে তিনগুন। করোনা কালীন মহামারিতে সরাকারী নির্দেশনা মোতাবেক গাড়িতে প্রতি দুই সিটে একটি সিট খালী রাখতে হবে। এছাড়া মাস্ক পরিথান বাধ্যতামূলক আর সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে গাড়িতে চলাচল করতে হবে। কিন্তু এসব সরকারী নিষেধাজ্ঞা থোড়ায় কেয়ার করে ঝিনাইদহে বেশ ধুমধামে চলছে লোকাল বাস, লেগুনা, সিএনজি ও ইজিবাইকসহ অন্যান্য গাড়ি। মঙ্গলবার সকালে দৈনিক দেশ সংবাদ পত্রিকার সিনিয়র স্টাফ রিপোর্টার মাসুদ রানা চুয়াডাঙ্গা থেকে ঝিনাইদহ আসার কালে (ঢাকা-জ ১৪১০৮০) নাম্বারের একটি বাসে উঠে। বাসে উঠে তিনি দেখতে পান বাসের মধ্যে যাত্রীদের কাছে থেকে দ্বিগুন ভাড়া আদায় করার পরেও পুরো রাস্তায় গাড়ি থামিয়ে তিনগুন যাত্রী বোঝায় করছে সুপারভাইজার ও হেলফার। এসময় মাসুদ রানা প্রতিবাদ ও ভিডিও করতে গেলে বাসরে সুপারভাইজার তাকে হেনস্থা করে মোবাইল কেড়ে নেই। পরে যাত্রীদের চাপে তার মোবাইল ফেরত দিতে বাধ্য হয় সেই বাস সুপার ভাইজার। এবিষয়ে হাইওয়ে পুলিশ ঝিনাইদহ অফিসে যোগাযোগ করলে যাবতীয় প্রমানাদি নিয়ে এসআই সোহাগ ব্যাবস্থা নিবেন বলে সাংবাদিকদের জানায়। এদিকে সরাকারী নিশেধাজ্ঞাকে পায়ে মাড়িয়ে রাতের অন্ধকারে ঝিনাইদহ টার্মিনাল থেকে একাধিক মাইক্রোবাসে মোটা অঙ্কের টাকার বিনিময়ে গাদাগাদি করে যাত্রীদের ঢাকায় বহন করছে মর্মে অভিযোগ চলমান রয়েছে। করোনা কালীন মহামারিতে সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক গাড়ি চালাতে হবে। না হলে গাড়ি আগের মত বন্ধ হয়ে যাবে। আর গাড়ির মধ্যে যাত্রীদের ছবি বা ভিডিও করতে গিয়ে সাংবাদিকের মোবাইল কেড়ে নিয়ে তাকে হেনন্থা করা গুরুত্বর অন্যায় বলে জাানান ঝিনাইদহ বাস মিনিবাস মালিক সমীতির সাধারন সম্পাদক খোকন মিয়া। এবিষয়ে ঝিনাইদহ সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা এসএম শাহিন নিজের দায় এড়িয়ে এটা তার কাজ নই বলে উল্লেখ করে বাস মালিক সমীতিকে জানাতে সাংবাদিকদের সুপরামর্শ প্রদাণ করেন।