October 28, 2021

Jagobahe24.com

সত্যের সাথে আপোসহীন

ঝিনাইদহ চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের অপসারণের দাবি জেলা আইনজীবী সমিতির

ঝিনাইদহ চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের অপসারণের দাবি জেলা আইনজীবী সমিতির

ঝিনাইদহ চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের অপসারণের দাবি জেলা আইনজীবী সমিতির

ঝিনাইদহঃ
ঝিনাইদহ চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের আদালত বর্জনের ঘোষণা দিয়েছে জেলা আইনজীবী সমিতি। বৃহস্পতিবার দুপুরে সমিতির কার্যালয়ের সামনে আয়োজিত এক সমাবেশে এ ঘোষণা দেন সভাপতি অ্যাডভোকেট খান আখতারুজ্জামান। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- সমিতির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মো. জাকারিযা মিলন, সিনিয়ার আইনজীবী আজিজুর রহমান, ইসমাইল হোসেনসহ (পিপি) অনেকে। এ সময় ঝিনাইদহ চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মো. হাসানুজ্জামানের বিরুদ্ধে অয়িম দুর্নীতি,অদক্ষতা এবং আইনজীবীদের সাথে অসম্মানজনক আচরণের অভিযোগ করেন বক্তরা। অনতিবিলম্বে তাকে অপসারণের দাবি জানান তারা। ওই বিচারককে অপসারণ না করা হলে আগামী সোমবার থেকে লাগাতার আন্দোলন কর্মসূচি পালনের ঘোষণা দেন জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি। আইনজীবী সমিতির পক্ষ থেকে দেওয়া এক লিখিত বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়েছে- চলতি বছরের অক্টোবর মাসে নানা ইস্যুতে জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আজহারুল ইসলামের সাথে দূরত্ব সৃষ্টি হয়। সমিতির পক্ষ থেকে একাধিক সভা ডেকে এ নিয়ে ক্ষোভ ও নিন্দা প্রকাশ করা হয়। চলতি মাসের ১০ তারিখে নির্বাহী পরিষদের জরুরি অন্য এক সভায় অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট বৈয়জন্ত বিশ্বাসের বিরুদ্ধে অসদাচরণসহ আইনজীবীদের অবমূল্যায়নের অভিযোগ আনা হয়। সেই সাথে ১৪ ডিসেম্বর থেকে ১৭ তারিখ পর্যন্ত ওই বিচারকের আদালত বর্জন করেন আইনজীবীরা। বুধবার ( ২৩ ডিসেম্বর) জব্দ করা মালামাল নিলামে বিক্রিতে অনিয়মসহ গুরুতর কিছু অভিযোগ নিয়ে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এ বৈঠকে আদালত এলাকায় বৃহস্পতিবার (২৪ ডিসেম্বর) মানববন্ধন,বিক্ষোভ ও সমাবেশের ডাক দেওয়া হয়। জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জাকারিয়া মিলন জানান, ইতোমধ্যে আইন মন্ত্রনালয় থেকে অভিযোগের বিষয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নেবার আশ্বাস দেওয়া হয়েছে। যে কারণে মানববন্ধন,বিক্ষোভ কর্মসূচি আগামী সোমবার পর্যন্ত স্থগিত করা হয়েছে। শুধু চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্টেটের আদালত বর্জন চলতে থাকবে। আইনজীবীদের চলমান আন্দোলন নিয়ে সিনিয়ার একাধিক আইনজীবী দ্বিমত পোষণ করেছেন। তারা বলেছেন,আন্দোলনের চেয়ে আলোচনা উত্তম। বিকাল ৪টা পর্যন্ত সংশ্লিষ্ট আদালতের পক্ষ থেকে চলমান পরিস্থিতি নিয়ে কোনো বিবৃতি প্রদান করা হয়নি।