January 26, 2022

Jagobahe24.com

সত্যের সাথে আপোসহীন

পীরগঞ্জে আইন-আদালত কিছুই মানছে বিবাদীরা ১৪৪ ধারা ভঙ্গ, স্বাক্ষীদেরকে মারপিট করা হচ্ছে

পীরগপীরগঞ্জে আইন-আদালত কিছুই মানছে বিবাদীরা ১৪৪ ধারা ভঙ্গ, স্বাক্ষীদেরকে মারপিট করা হচ্ছেঞ্জে

পীরগঞ্জে নির্বাচনী সহিংসতা আওয়ামী লীগের অফিস ভাংচুর, আহত-৩

পীরগঞ্জ রংপুর প্রতিনিধি ঃ
পীরগঞ্জে আসন্ন ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের দলীয় অফিসে হামলা চালিয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবিসহ অফিসে ভাংচুর করা হয়েছে। এ সময় হামলাকারীরা ৪ টি দোকানও ভাংচুর করে। হামলায় আহত ৩ জনকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার কাবিলপুর ইউনিয়নের নিজ কাবিলপুর বাজারে ওই ঘটনায় থানায় অভিযোগ করা হয়েছে।

অভিযোগে জানা গেছে, আসন্ন ইউপি নির্বাচন উপলক্ষ্যে বৃহষ্পতিবার রাত ৮ টার দিকে উপজেলার কাবিলপুর ইউনিয়নের নিজ কাবিলপুর বাজারের ব্যবসায়ী বাবু মিয়া তার পান দোকানে কয়েকজনকে নিয়ে নৌকা মার্কায় ভোট দেয়ার বিষয়ে আলোচনা করছিলেন। এ সময় নিজ কাবিলপুরের মতলুবুর রহমান (২২), গোলাম আজম (২৪), আমছার আলীর (২৪) নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী লাঠি, সোঠা, অস্ত্র নিয়ে ওই পান দোকানে হামলা চালিয়ে বাবু মিয়া, মঞ্জু মিয়া ও পারভেজ মিয়াকে বেধড়ক পেটায়। হামলাকারীরা ওই বাজারের আওয়ামী লীগের দলীয় অফিসে হামলা চালিয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি সহ অফিস ভাংচুর করে। তাদেরকে বাঁধা দেয়ায় ওই বাজারের ব্যবসায়ী ইসমাইল হোসেনের ভাতের হোটেল, মঞ্জু মিয়ার ইলেকট্রনিক্সের দোকান এবং সোহেল রানার মিষ্টির হোটেলে হামলা চালিয়ে লুটপাট ও ভাংচুর করে। মিষ্টি ব্যবসায়ী সোহেল রানার মা শাহানুরী বেগম দোকান রক্ষায় এগিয়ে এলে তাকেও পেটানো হয়েছে। এ ব্যাপারে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বাজাটির একাধিক ব্যবসায়ী বলেন, আগামী ১১ নভেম্বর কাবিলপুর ইউনিয়নে নির্বাচন হবে। হামলাকারীরা নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর থেকেই নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থীর বিরোধিতা করছে। এরই জের ধরে তারা পরিকল্পিতভাবে হামলা চালিয়ে আওয়ামী লীগের অফিস, দোকানপাট ভাংচুর করেছে। হামলা, লুটপাটের ঘটনায় থানায় অভিযোগকারী ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ী বাবু মিয়া বলেন, আমি নৌকার ভোট করি। এটা ওরা পছন্দ করে না। তারা সংঘবদ্ধ হয়ে আমার দোকানসহ ৪টি দোকানে, আওয়ামী লীগের দলীয় অফিসে হামলা, ভাংচুর ও লুটপাট করেছে। আমি মামলার জন্য থানায় অভিযোগ দিয়েছি।

কাবিলপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদে নৌকা প্রতীকপ্রাপ্ত বর্তমান চেয়ারম্যান রবিউল ইসলাম রবি বলেন, ঘটনাটি শুনেছি। হামলায় ক্ষতিগ্রস্তরা থানায় মামলা করবেন বলে শুনেছি। থানার ওসি সরেস চন্দ্র বলেন, আসন্ন নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয় ও কয়েকটি দোকানে হামলা, ভাংচুর ও লুটপাট এবং আহত হওয়ার অভিযোগ পেয়েছি। তদন্তের পর আইনী প্রক্রিয়া শুরু করা হবে।