September 17, 2021

Jagobahe24.com

সত্যের সাথে আপোসহীন

পীরগঞ্জে হানিফ পরিবহনের নৈশ কোচে ডাকতি, চালক নিহত

পীরগঞ্জে হানিফ পরিবহনের নৈশ কোচে ডাকতি, চালক নিহত

পীরগঞ্জে হানিফ পরিবহনের নৈশ কোচে ডাকতি, চালক নিহত

পীরগঞ্জ(রংপুর) প্রতিনিধিঃ ঢাকা-রংপুর মহাসড়কের পীরগঞ্জের চম্পাগঞ্জ হাইস্কুলের সামনে ডাকাতের অস্ত্রের আঘাতে মুনজুর হোসেন (৪৫) নামের এক চালক খুন হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন সুপারভাইজার ও হেলপার। বুধবার (১ সেপ্টেম্বর) দুপুরে পীরগঞ্জ থানা পুলিশ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। বাস ও সুপারভাইজার-হেলপার থানা হেফাজতে রয়েছে। নিহত বাস চালক মনজু মিয়া ঢাকার মিরপুরের বাসিন্দা।
জানা যায়, ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা পঞ্চগড়গামী হানিফ এন্টারপ্রাইজে দুর্র্ধষ ডাকাতি সংঘটিত হয়। যাত্রী বেশে ৫ সদস্যের ডাকাত দল গাইবান্ধার সাদুল্লাপুর উপজেলার ধাপেরহাটের অদূরে চকশোলাগাড়ি (বিটিসি) নামক স্হানে ডাকাতি শেষে নেমে যায়। ডাকাতদল গাড়ি নিয়ন্ত্রণ নিয়ে রংপুরের শঠিবাড়ী পর্যন্ত ডাকাতি করে শঠিবাড়ীর পাম্প থেকে বাস ঘুরিয়ে নিয়ে আবার ঢাকা অভিমুখে আসার পথে সাদুল্লাপুরের ধাপেরহাট-পলাশবাড়ীর মাঝামাঝি রংপুরের পীরগঞ্জ থানার কাবিলপুর ইউনিয়নের চম্পাগঞ্জের চকশোলাগাড়ী নামকস্থানে মহাসড়কে গাড়ি রেখে পালিয়ে যায়।
উক্ত পরিবহনের হেলপার জানায়, গত ৩১ আগষ্ট সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায় ৩০ জন যাত্রী নিয়ে পঞ্চগড়ের উদ্দেশ্য ছেড়ে আসে হানিফ এন্টারপ্রাইজ। ডাকাতরা সাদুল্লাপুরের ধাপেরহাটের পীরগঞ্জের সীমানায় এসে রাত ৩টার দিকে বাসের নিয়ন্ত্রণ নেয়ার জন্য প্রথমে চালককে আঘাত করলে রাস্তার মাঝে গাড়ী ঘুরিয়ে নেওয়া চেষ্টা করে। ডাকাতদল আবারও সজোরে চালকের কাঁধে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে গাড়ি নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নেয়। এরপর ডাকাতদল ডাকাতি করতে করতে শঠিবাড়ী পর্যন্ত চলে আসে। সেখান থেকে পাম্পে বাস ঘুরিয়ে ঘন্টাব্যাপী ডাকাতি শেষে পলাশবাড়ী দিকে রওনা দিয়ে জাতীয় মহাসড়কের পীরগঞ্জের চম্পাগঞ্জ হাইস্কুলের সামনে চকশোলাগাড়ী মৌজায় রাত তিনটার দিকে যাত্রীসহ হানিফ পরিবহন রেখে ডাকাতরা পালিয়ে যায়। পরে আমরা আহত চালক মনজু মিয়াকে পলাশবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত্যু ঘোষণা করে। আহত সুপারভাইজার তৈমুর পঞ্চগড়ের আটোয়ারী এলাকার তরিকুল ইসলামের ছেলে। হেলপার বুলবুল মিয়া পলাশবাড়ী উপজেলার নুরপুর গ্রামের মৃত খাজা মিয়ার ছেলে।
বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পীরগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সরেস চন্দ্র।