August 5, 2021

Jagobahe24.com

সত্যের সাথে আপোসহীন

বীরগঞ্জে পবিত্র রমজান মাস লকডাউনের কারনে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের বাজারে আগুন

বীরগঞ্জে পবিত্র রমজান মাস লকডাউনের কারনে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের বাজারে আগুন লেগেছে

বীরগঞ্জে পবিত্র রমজান মাস লকডাউনের কারনে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের বাজারে আগুন

খায়রুন নাহার বহ্নি, বীরগঞ্জ(দিনাজপুর)প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের বীরগঞ্জে পবিত্র রমজান মাস ও লকডাউনের কারনে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের বাজারে আগুন লেগেছে। প্রতিদিনই লাগামহীনভাবে বাড়ছে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম। চাল, তেল, ডাল, মাংস, সব কিছুরই দাম বৃদ্ধিতে দিশেহারা সাধারণ নিম্ন ও মধ্য আয়ের মানুষ। আপাতদৃষ্টিতে মনে হচ্ছে বাজারে সরকারের কোন নিয়ন্ত্রণই নেই। অসাধু ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটের কাছে পুরো জাতি আজ অসহায় হয়ে পড়েছে।”
বাজারে মিনিকেট চাল ৬৫ থেকে ৭০ টাকা, প্রতিলিটার বোতলজাত সয়াবিন তেলে ১৩০ টাকা থেকে ১৪০ টাকা, দেশী মুরগি প্রতিকেজি ৪০০ থেকে ৪৩০, বয়লার মুরগি ১৫০ টাকা, পাকিস্তানী বা সোনালী মুরগি ৩০০-৩৫০ টাকা, এক কেজি গরুর মাংস ৫৫০-৬০০ টাকা, খাসির মাংস ৭৫০-৮০০ টাকা, রুই মাছ ৩০০ থেকে ৩৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। সব ধরণের সব্জী ৪০-৫০ টাকার বিক্রি হচ্ছে । বাজারে প্রর্যাপ্ত সরবরাহ দেখাগেলেও দাম নি¤œমধ্যবিত্তদের নাগালের বাহিরে ।একজন নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবারের পক্ষে এত দাম দিয়ে বাজার করে টিকে থাকা অসম্ভব। অন্যদিকে পবিত্র রমজান সামনে রেখে চিনি, ছোলা, ডাল সহ প্রায় সব ভোগ্যপন্যের দাম প্রতিদিনই বাড়িয়ে চলেছে এক শ্রেণীর অসাধু ব্যবসায়ী চক্র। এই চক্রের বিরুদ্ধে এখনই কঠোর আইনী পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে। অবিলম্বে নিত্য প্রয়োজনীয় দব্য সামগ্রী সাধারণ মানুষের ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে এনে এবং রেশনের মাধ্যমে নায্যমূল্যে নিম্ন আয়ের শ্রমজীবী মেহনতি মানুষের মধ্যে সরবরাহ করতে হবে। অন্যথায় সাধারণ মানুষের দুর্ভোগ বাড়তেই থাকবে।