December 8, 2021

Jagobahe24.com

সত্যের সাথে আপোসহীন

বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের শ্রমিকদেরকে স্ব-স্ব কর্মস্থলে যোগদান ও মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে মানব বন্ধন।

বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের শ্রমিকদেরকে স্ব-স্ব কর্মস্থলে যোগদান ও মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে মানব বন্ধন।

বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের শ্রমিকদেরকে স্ব-স্ব কর্মস্থলে যোগদান ও মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে মানব বন্ধন।

বড়পুকুরিয়া, দিনাজপুর প্রতিনিধি।
দিনাজপুরের বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়ন এর সকল শ্রমিকদের কে স্ব-স্ব কর্মস্থলে যোগদান ও সকল নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে ঘন্টা ব্যাপি মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। গত কাল সোমবার সকাল ১১টায় বড়পুকুরিয়া স্কুল এন্ড কলেজ মাঠে কয়লা খনি শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের ব্যানারে এই মানব বন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানব বন্ধনে বক্তব্য রাখেন বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়ন রেজি নং ২৬৪৭ এর সভাপতি মোঃ রবিউল ইসলাম রবি। তিনি তার বক্তব্যে বলেন কোম্পানির ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান ঢগঈ-ঈগঈ-ঔঝগঊ এর অধিনে কর্মরত প্রায় ১১০০ শ্রমিক আমরা ভূ-গর্ভ সহ বিভিন্ন স্থানে কাজ করছি। আমরা খনির সুচনা লগ্ন থেকে কোম্পানির তথা দেশ ও জাতীয় উন্নয়নের স্বার্থে নিজেদের জায়গা জমি, ঘরবাড়ি, কবরস্থান, মসজিদ সব কিছু বিলিন করে নিজেরাও জীবন বাজি রেখে, আন্ডারগ্রাউন্ড থেকে ২০ থেকে ২২ বছর যাবৎ ৪৫% তাপমাত্রায় কয়লা উত্তোলনের সাথে শ্রম দিয়ে আসছি। যার কারনে পার্শ্ববর্তী কয়লা ভিত্তিক তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র বিদ্যুৎ উৎপাদন করে উত্তর অঞ্চল, তথা দেশ ও জাতির উন্নয়নে অগ্রযাত্রায় সহায়ক ভুমিকা পালন করে আসছে। কিন্তু বিগত ২৬শে মার্চ/২০২০ইং হইতে বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের বাংলাদেশ সরকারের ঘোষনা অনুযায়ী সারা দেশের মত বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি লকডাউন ঘোষণা করে। তাই আমরা স্বাস্ত্য বিধি মেনে নিজ নিজ বাড়ীতে অবস্থান করি এবং করোনাকালীন সময়ে কিছু সংখ্যক শ্রমিক দিয়ে কয়লা খনির কয়লা উত্তোলন স্বচল রাখার জন্য কোম্পানীকে সহযোগিতা করি। বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি কর্তৃপক্ষ কিছু মনগড়া কালো আইন তৈরী করে অল্প কিছু সংখ্যক শ্রমিককে লগডাউন এর নামে অবরুদ্ধ করে কাজ করাচ্ছে। উৎপাদন বন্ধ রেখে বাকি সকল শমিককে অযোক্তিক ভাবে বাড়ীতে বসে রেছেন। যাহা কোম্পানীর ও শমিকদের জন্য ক্ষতির সম্মুখিন হচ্ছে। অন্য দিকে আমরা শ্রমিকরা কাজে যোগদান করতে না পেরে বাড়ীতে পরিবার পরিজন নিয়ে অনাহারে অদ্রহারে দিন যাপন করছি। আমাদের দাবি ১। বড়পুকুরিয়া কলয়া খনির ঢগঈ-ঈগঈ-ঔঝগঊ সকল শ্রমিকে স্ব-স্ব কর্মস্থলে যোগদান করাতে হবে। ২। শ্রমিক ও নেতা কর্মীদের নামে কোম্পানী কর্তৃক দ্বায়েরকৃত হয়রানি মূলক মিথ্যা মামলা অবিলম্বে প্রত্যাহার করতে হবে। ৩। চুক্তি মোতাবেক যে সকল শ্রমিকের বয়সের কারণে কাজের সক্ষমতা হারিয়েছে, পঙ্গুত্ব বরণ করিয়াছে এবং অকালে মৃত্যু বরণ করেছে তাদের পরিবারের মনোনীত ব্যক্তিদেরকে দ্রুত কাজে যোগদান করাতে হবে। এসময় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখে বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মোঃ আবু সুফিয়ান, বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির জাতীয় শ্রমিক লীগের সভাপতি মোঃ জাহিদুল ইসলাম রতন সাধারণ সম্পাদক, মোঃ রবিউল ইসলাম রবি। মাবনবন্ধনে বড়পুকুরিয়া জাতীয় শ্রমিক লীগ ও বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের ১০০০ নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন। তাদের ৩ দফা দাবি মেনে না নিলে আগামীতে কঠোর আন্দোলন ঘোষণা করতে বাধ্য হবে তারা।