September 26, 2021

Jagobahe24.com

সত্যের সাথে আপোসহীন

মুই কি একখান কার্ড পাবানাও বাপু

আল মামুন মিলন, পার্বতীপুর(দিনাজপুর)প্রতিনিধি
মুই কি একখান কার্ড পাবানাও বাপু, শেখের বেটি নাকি গরীব মানুষক বাড়ী বানে দেয়ছে মুইতো কিছু পাও নাই। মোর তো থাইকবার ঘরও নাই এ্যানা চাউল পাবার কার্ডও নাই। ৮০ বছরের বৃদ্ধা রওশনারার শেষ আকুতি জানিয়ে কথাগুলো বলতেই তার চোখে জ্বল টলমল করছিল।
৫০ বছর ধরে জীবিকার যুদ্ধে লড়াইটা বয়সের ভারে থেমে গেছে রওশনারার। আগের মত তেমন আর হাক ডাক চলাফেরা নেই। অশুখে অদ্যাহারে শরীর ক্ষীন হয়ে গেছে তার। স্বাধীনতা যুদ্ধের আগে স্বামী গোলাম মোস্তফা মারা যাওয়ার পর সংসারের হাল ধরতে হয় তাকে। এক খন্ড জমির উপর ঝুপড়ি ঘর ছাড়া তার আর কিছু ছিলনা । একমাত্র ছেলে ভ্যান চালক নজরুলের স্ত্রী সন্তানদের নিয়ে অভাবের সংসার। সেই একবেলা রান্নার হাড়িতে চলে রওশনারার দু মুঠো আহার। সমাজে নানা উন্নয়ন সহায়তা কর্মসুচী যখন আশার আলো ছড়াচ্ছে ঠিক তখনই রওশনারারা দৃষ্টির আড়ালে রয়ে গেছে জনপ্রতিনিধি কিংবা উন্নয়ন সহায়তা প্রদানকারী সংস্থাগুলোর কাছে। সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনির আওতায় বয়স্ক, বিধবা ভাতা এমন কি দুস্থ্য ভাতার কার্ড পর্যন্ত মেলেনি তার। নানা প্রতিকুলতায় মেলেনি কোন আর্থিক সহায়তা।
গেল বছর ভাতা সুবিধা পেতে স্থানীয় জনপ্রতিনিধির হাতে জাতীয় পরিচয়পত্র (ভোটার আইডি কার্ড) জমা দিলেও সহায়তাতো দুরের কথা কার্ডটি পর্যন্ত ফেরত পাননি তিনি। এ নিয়ে কথা হলে উপজেলা সমাজ সেবা অফিসার তাপস রায় বলেন, প্রাপ্র্য ভাতা ভোগীদের সামাজিক নিরাপত্তাবেষ্টনির আওতায় নিতে কাজ করছি। বিষয়টি তিনি দেখবেন বলে জানান।