July 26, 2021

Jagobahe24.com news portal

Real time news update

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার দাবীতে ছাত্র ইউনিয়নের সংবাদ সম্মেলনে

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার দাবীতে ছাত্র ইউনিয়নের সংবাদ সম্মেলনে

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার দাবীতে ছাত্র ইউনিয়নের সংবাদ সম্মেলনে

বিশেষজ্ঞদের মতামত নিয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার ৮ দফা দাবি রোডম্যাপ ঘোষণার আহ্বান
বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বিশেষজ্ঞদের মতামত নিয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার রোডম্যাপ ঘোষণার আহ্বান জানানো হয়েছে।
সংবাদ সম্মেলনে, করোনাকালীন সময়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বেতন ফি মওকুফ, এসাইনমেন্টের নামে আদায়কৃত ফি ফেরত, নামে-বেনামে ফি আদায়কারী প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ, বিশেষজ্ঞদের মতামত নিয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার রোডম্যাপ ঘোষণা, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে আবাসিক হল খুলে দিয়ে, আবাসনের ব্যবস্থা করে পরীক্ষা নিতে হবে। অছাত্র-সন্ত্রাসীদের হল থেকে বিতারণসহ ৮ দফা দাবি জানানো হয়।
৮ দফা দাবি আদায়ে আগামী ১৮ জানুয়ারি ঢাকায় বিক্ষোভ মিছিল; ২৫ জানুয়ারি সারাদেশে ছাত্র-শিক্ষক-অভিভাবক মতবিনিময় সভা; ২৭ জানুয়ারি থেকে সারাদেশে ৮ দফা দাবির সমর্থনে গণস্বাক্ষর সংগ্রহ। পরবর্তীতে শিক্ষা মন্ত্রণালয় বরাবর স্মারকলিপি প্রদান।
আজ ১৬ জানুয়ারি ২০২১, শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি মো. ফয়েজউল্লাহ। এসময় সংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক দীপক শীল। উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক, সুমাইয়া সেতু, কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি ফয়জুর মেহেদী, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সভাপতি কেএম মুত্তাকী, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ সম্পাদক খায়রুল হাসান জাহিন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সহ-সভাপতি মাহির শাহরিয়ার রেজা, ঢাকা মহানগরের সহ-সভাপতি প্রিতম ফকির, ঢাকা কলেজের সভাপতি বিএম জুবায়ের প্রধান, কবি নজরুল সরকারি কলেজের সভাপতি শামীম হোসেন, কবি নজরুল সরকারি কলেজের সাংগঠনিক সম্পাদক প্রিজম ফকির প্রমুখ।
সংবাদ সম্মেলনে আরও বলা হয়, ‘মহামারির মধ্যেও বাণিজ্যিক কোর্স বন্ধ নেই। অতিরিক্ত লাভের আশায়, ও নিয়মিতদের পাঠ কার্যক্রম বন্ধ থাকায় দেদারসে চলছে বাণিজ্যিক কোর্সের কার্যক্রম। করোনা ভাইরাসের মহামারিতে দেশের ভগ্ন শিক্ষাখাত ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে। একপ্রকার অদৃশ্যের উপর ভর করেই চলেছে দেশের শিক্ষার্থীরা। তারই মধ্যে পাঠ্যক্রমকে দিনকে দিন সাম্প্রদায়িক করে তোলার প্রক্রিয়া বন্ধ নেই। পাঠ্যপুস্তকে অসাম্প্রদায়িক লেখকদের লেখা বাদ দেয়া শুরু করে অলঙ্করণ, সর্বত্রই সাম্প্রদায়িক বীজ রোপণ করে দেয়ার অপচেষ্টা পরিলক্ষিত হয়েছে। হেফাজতে ইসলামের পরামর্শে পাঠ্যবই সংস্কারসহ নানাবিধ উপায়ে সাম্প্রদায়িকগোষ্ঠীগুলোকে আস্ফালনের সরকারি সুযোগ তৈরি করে দেয়াতেই ভাস্কর্য ভাঙার মতো ঘটনা দেখেছে বাংলাদেশ।’
সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, নানা প্রতিক‚লতার মধ্যেও বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন অতীত ঐতিহ্য সমুন্নত রেখে নীতিনিষ্ঠভাবে সংগ্রাম পরিচালনা করবে। এই সংগ্রামে ছাত্র সমাজকে এগিয়ে আসার ও সচেতন দেশবাসীকে সহায়তা করার আহ্বান জানানো হয়।