August 4, 2021

Jagobahe24.com

সত্যের সাথে আপোসহীন

সাদুল্লাপুর চেয়ারম্যানের সাথে দ্বন্দ্বে মেম্বারের পদত্যাগ

সাদুল্লাপুর চেয়ারম্যানের সাথে দ্বন্দ্বে মেম্বারের পদত্যাগ

সাদুল্লাপুর চেয়ারম্যানের সাথে দ্বন্দ্বে মেম্বারের পদত্যাগ

গাইবান্ধা ঃ সাদুল্লাপুর উপজেলার সীমান্তঘেঁষা সুন্দরগজ্ঞ উপজেলার ধোপাডাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের সাথে দ্বন্দ্বের জেরে মমতাজ আলী নামের এক ইউপি সদস্য স্বীয় পদ থেকে ইস্তফা পত্র দিয়েছেন।
আজ শুক্রবার ( ৭ মে) ইউপি সদস্য মমতাজ আলী বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, গত ৫ মে, বুধবার ডাকযোগে আমার স্বাক্ষরিত ইস্তফা পত্র খানা স্থানীয় সরকার,পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের সচিব,জেলা প্রশাসক,ডিডিএলইজি ও সুন্দরগজ্ঞ উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবরে প্রেরণ করেছি। তিনি তার ইস্তফা পত্রে উল্লেখ করেছেন, ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোখলেছুর রহমান রাজু নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে ক্ষমতার অপব্যবহার সহ নানা অনিয়ম দুর্নীতি ও স্বজনপ্রীতির সাথে জড়িয়ে পড়েন। তার এহেন কর্মকান্ডের বাধা দিতে গিয়ে আমি তার কাছে চক্ষুশূল হয়ে উঠি। সম্পতি তার বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ বরাবরে আর্থিক দুর্নীতি সংক্রান্ত একখানা অভিযোগ করা হয়। ইতিমধ্যে ওই অভিযোগের গঠিত তদন্ত কমিটি এ ব্যাপারে সরেজমিনে তদন্ত করেন। কিন্তু এখন পর্যন্ত তার কোন ফল পাওয়া যায়নি।এ পরিস্থিতিতে চেয়ারম্যান মোখলেছুর রহমান আমার উপর ক্ষিপ্ত হয়ে প্রতিহিংসার আগুনে জ্বলে পুড়ে বিমাতাসুলভ আচরন করতে থাকেন। একপর্যায়ে চেয়ারম্যান মোখলেছুর রহমান ঈর্ষান্বিত হয়ে সরকারী আর্থিক সহায়তার এলাকার সকল ধরনের উন্নয়ন মূলক কাজকর্ম থেকে আমাকে বঞ্চিত করে রেখেছেন। ওই ওয়ার্ডের বাসিন্দারা জানান,চেয়ারম্যান মেম্বর বিরোধ কে কেন্দ্র করে আমাদের ন্যায্য অধিকার থেকে বঞ্চিত করা হলে তা কোন ভাবেই বরদাস্ত করা হবে না। প্রয়োজনে আন্দোলন সংগ্রাম করে আমাদের অধিকার আদায় করা হবে। ধোপাডাঙ্গা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক আব্দুল মালেক বাবলু মিয়া বলেন, একক ক্ষমতাবলে চেয়ারম্যান তার ইচ্ছামত যা খুশি করবে। তা কখনই মেনে নেয়া হবে না।
তিনি সকল ইউপি সদস্যদের মতৈক্যের ভিক্তিতে এ ইউনিয়নের সার্বিক উন্নতি সাধনের জন্য সকলের প্রতি উদ্দাত্ত আহবান জানান। তবে আনীত এসব অভিযোগ চেয়ারম্যান মোখলেছুর রহমান অস্বীকার করে বলেন, আমি চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালনকালীন সময়ে উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় আমার উপর ঈর্ষান্বিত হয়ে কুচক্রি মহল নানারূপ ষড়যন্ত্র করে আমার বিরুদ্ধে বিভিন্ন ধরনের বিরুদ্ধাচরন ও বিভ্রান্তিমূলক অপ্রচার চালিয়ে আমাকে রাজনৈতিক ও সামাজিক ভাবে হেয় প্রতিপন্ন করছেন। তিনি বলেন মেম্বরের ইস্তফার বিষয়টি আমার জানা নেই বলে । ওটা সম্পর্ন তার ব্যক্তিগত বিষয়।