April 15, 2021

Jagobahe24.com news portal

Real time news update

৬ মার্চ পীরগঞ্জ উপজেলায় স্বাধীন বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন দিবস।

৬ মার্চ পীরগঞ্জ উপজেলায় স্বাধীন বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন দিবস।

৬ মার্চ পীরগঞ্জ উপজেলায় স্বাধীন বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন দিবস

কাজী লুমুম্বা লুমুঃ ১৯৭১-এর মার্চ মাস।ওই মাসের শুরু থেকেই দেশজুড়ে হরতাল-অবরোধ।১ মার্চ জেনারেল ইয়াহিয়া খান আকস্মিকভাবে জাতির উদ্দেশে ভাষণে ৩ মার্চের জাতীয় পরিষদের অধিবেশন বাতিল করেন।এই ঘোষনা শোনা মাত্রই প্রতিবাদে সারা ঢাকায় রাস্তায় নেমে পড়ে হাজার হাজার ছাত্র-জনতা।ঢাকা ষ্টেডিয়ামের বিশাল মাঠ ছাত্র-জনতায় ভরে যায়।ওই সমাবেশে হাজির হন বঙ্গবন্ধু।তিনি ছাত্র-জনতাকে ইয়াহিয়া খানের ঘোষণার বিরুদ্ধে আন্দোলন গড়ে তোলার আহ্বান জানান।২ মার্চ ঢাকায়, ৩ মার্চ সারাদেশে হরতাল এবং ৭ মার্চ রেসকোর্সে(বর্তমানে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান)জনসভার ঘোষণাও দেন বঙ্গবন্ধু।২ মার্চ তৎকালীন ডাকসু’র ভি পি ছাত্রনেতা আ স ম আবদুর রব ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কলাভবন চত্বরে স্বাধীন বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন করেন।এরপর ৩ মার্চ রাতে ইয়াহিয়া খান তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের গভর্ণর এডমিরাল আহসানকে পদচ্যুত করে জেনারেল ইয়াকুব খানকে সাময়িকভাবে দায়িত্ব দেন।তারপরেও ৪-৬ মার্চ পর্যন্ত একনাগাড়ে সারাদেশে হরতাল পালিত হয়।সারাদেশ উত্তাল। আন্দোলন তীব্রতর হতে থাকে।ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে অনেক ছাত্র-জনতা শহীদ হয়।তারপর ৪ মার্চ জেনারেল টিক্কা খানকে গভর্ণর নিয়োগ এবং তাঁর নিকট পূর্ব পাকিস্তানের ক্ষমতা অর্পণ করেন প্রেসিডেন্ট ইয়াহিয়া। ৬ মার্চ শপথ গ্রহণের জন্য টিক্কা খান ঢাকায় পৌঁছেন ৫ মার্চ।এই পরিস্থিতিতে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের তৎকালীন ছাত্রনেতা আব্দুস সোবহান বাদশা আওয়ামী লীগের একনিষ্ঠ কর্মী দছিজল হকের সদরের বাসায় আওয়ামী লীগের অস্থায়ী কার্যালয়ে সর্বপ্রথম স্বাধীন বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন করেন।তাকে সহযোগিতা করেন আওয়ামী লীগ কর্মী উপজেলার ৮ নং রায়পুর ইউনিয়নের ধনশালা গ্রামের তছির উদ্দিন।যিনি এলাকার মানুষের কাছে ‘টোরো মেকার’ নামে পরিচিত ছিলেন।