June 15, 2021

Jagobahe24.com news portal

Real time news update

রমেক হাসপাতালে কিডনি ডায়ালাইসিস দেড় মাস পর শুরু

রমেক হাসপাতালে কিডনি ডায়ালাইসিস দেড় মাস পর শুরু

রমেক হাসপাতালে কিডনি ডায়ালাইসিস দেড় মাস পর শুরু

যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী এক নারীর অনুদান পাওয়ায় দীর্ঘ দেড় মাস পর শনিবার থেকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের কিডনি রোগীদের ডায়ালাইসিস কার্যক্রম শুরু হয়েছে। এর আগে, দুটি ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্লান্ট অচল হয়ে পড়ায় গত ৮ এপ্রিল থেকে ডায়ালাইসিস বন্ধ ছিল।

ডায়ালাইসিস সেবা বন্ধ থাকায় দেড় মাস দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে রংপুর, গাইবান্ধা, লালমনিরহাট, কুড়িগ্রাম, নীলফামারী, দিনাজপুর, ঠাকুরগাঁও এবং পঞ্চগড়ের কিডনি রোগীদের। নতুনভাবে কার্যক্রম শুরু হওয়ায় স্বস্তি প্রকাশ করেছেন তারা।

হাসপাতালের নেফ্রোলজি বিভাগের প্রধান ডা. মোবাশ্বের হোসেন জানান, ২৬টি ডায়ালাইসিস মেশিনের মধ্যে সার্বক্ষণিক ১২-১৪টি চালু থাকে। দুটি পানি শোধনাগার মেশিন দীর্ঘদিন অচল থাকায় কিডনি রোগীদের ডায়ালাইসিস কার্যক্রম বন্ধ ছিল। হাসপাতাল পরিচালকসহ বিভিন্ন দফতরে একাধিকবার লিখিত জানিয়েও প্রতিকার মেলেনি। পরে যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী সৈয়দা আফরোজা বিউটি নামে এক নারীর আর্থিক সহায়তায় ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্লান্ট দুটি মেরামত করা হয়।রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নেফ্রোলজি বিভাগ

রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নেফ্রোলজি বিভাগ

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, নেফ্রোলজি বিভাগের কিডনি ডায়ালাইসিস ইউনিটে ৬টি ডায়ালাইসিস মেশিন বিকল হয়ে পড়ে আছে। চালু থাকা মেশিনগুলোর মাধ্যমে কিডনি ডায়ালাইসিস হতে দুটি পানি শোধনাগার দিয়ে বিশেষ পানি ব্যবহার করা হয়। এই পানির মাধ্যমেই ডায়ালাইসিস মেশিনগুলো চালু থাকে। কিন্তু পানি শোধনাগার মেশিন দুটি বিকল হওয়ায় ৮ এপ্রিল থেকে ডায়ালাইসিস সেবা বন্ধ ছিল।

কিডনি বিভাগের চিকিৎসকরা জানান, প্রতিদিন একটি মেশিন থেকে তিনজন রোগীর ডায়ালাইসিস হয়। গড়ে ৩৫-৪০ জন রোগীর নিয়মিত ডায়ালাইসিস করা হয়। একজন রোগীর সপ্তাহে দুইদিন ডায়ালাইসিস করতে হয়।

রংপুর মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. একেএম নুরুন্নবী লাইজু বলেন, ডায়ালাইসিস কার্যক্রম বন্ধ থাকার বিষয়টি যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী আমার এক নিকটাত্মীয়কে জানাই। তিনি বিষয়টি জেনে মানবিক কারণে মেশিনগুলো মেরামতের জন্য প্রয়োজনীয় আর্থিক সহায়তা করেন। ফলে শনিবার থেকে পুরোপুরি ডায়ালাইসিস কার্যক্রম শুরু হয়।