September 21, 2021

Jagobahe24.com

সত্যের সাথে আপোসহীন

ঠাকুরগাঁওয়ে নকল সনদে চাকুরি অভিযোগে প্রভাষককে বরখাস্ত সরকারের ১৭ লক্ষ টাকা আত্মসাৎ

ঠাকুরগাঁওয়ে নকল সনদে চাকুরি অভিযোগে প্রভাষককে বরখাস্ত সরকারের ১৭ লক্ষ টাকা আত্মসাৎ

শৈলকুপায় বিএজিএড পাশের জাল সনদে চাকরির অভিযোগে মামলা

ঝিনাইদহঃ
ঝিনাইদহের শৈলকুপার নাগিরাট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে বিএজিএড জাল সনদে চাকুরি করছেবাবুল হুসাইন নামের ১ শিক্ষক। এ ব্যাপারে ঝিনাইদহ কোটে একটি মামলা দায়ের করেছে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সাবেক সভাপতি খন্দোকার গোলাম আকবর হ্যাপি। মামলার এজাহার সুত্রে জানা গেছে,ঝিনাইদহ জেলার শৈলকুপা উপজেলা নাগিরাট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে উপজেলার মকরমপুর গ্রামের মাজেদ আলী বিশ্বাসের ছেলে বাবুল হুসাইন গত ০৭/০২/২০০৫ ইং তারিখে কৃষি শিক্ষক পদে যোগদান করে।যোগদানের সময় শিক্ষক বাবুল হোসেন তার সমস্ত পাশের আসল সনদ জমা না দিয়ে সে ফটোকপি জমা দিয়েছিল। সে ২০০২ সালে এসএসসি ও ২০০৪ সালে জরিফ বিশ্বাস কলেজ থেকে বানিজ্য বিভাগে এইচএসসি পাশ করে। তখন তার ৪র্থ বিষয় ছিল কম্পিউটার শিক্ষা। এদিকে ২০০৪ সালে ওই কলেজে কৃষি শিক্ষা বিষয় চালু না থাকলে ও বাবুল হুসাইন তার ৪র্থ বিষয় কম্পিউটার শিক্ষার স্থলে কৃষি শিক্ষা জাল জালিয়াতির মাধমে স্থাপন করিয়া জাল সনদ কে আসল সনদ হিসাবে জমা দিয়ে চাকুরি তে যোগদান করে এবং একই সনদ দাখিল করিয়া বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিনে যশোরের কাজী নজরুল ইসলাম ডিগ্রী কলেজে বিএজিএড কোর্সে ভর্তি হয়ে ২০০৮ সালে পাশ করে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ২০১৪ সালে জরিফ বিশ্বাস ডিগ্রী কলেজে কৃষি শিক্ষা বিষয় চালু হয়।এদিকে এইচএসসিতে কৃষি শিক্ষা বিষয় না থাকলে কোন শিক্ষার্থী বিএজিএড কোর্সে ভর্তি হতে পারবেনা বলে বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি বিঞ্জপ্তিতে উল্লেখ রয়েছে। বর্তমানে বাবুল হুসাইন কৃষি শিক্ষক পদে কর্মরত থেকে সরকারী সমস্ত সুবিধা ভোগ করে চলছে।এব্যাপারে স্থানীয় নায়েব আলী ও শামীম মুন্সী জানান, তার ৪র্থ বিষয় এইচএসসি তে কৃষি শিক্ষা ছিল না কিন্তু কোনভাবে বাবুল হুসাইন কৃষি শিক্ষক পদে নিয়োগ পেল এটা আমাদের বোধগম্য নয়।মামলার বাদী খন্দোকার গোলাম আকবর হ্যাপি জানান তার শিক্ষকতা সনদে জালিয়াতি করার কারণে আমি বাদী হয়ে ঝিনাইদহ জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আমলী শৈলকুপা আদালত ঝিনাইদহে মামলা দায়ের করেছি। শিক্ষক বাবুল হুসাইনের সাথে মোবাইল ফোনে যোগযোগ করলে তাকে পাওয়া যায়নি।প্রধান শিক্ষক মুকুল হোসেন জানান, আমি সবেমাত্র যোগদান করেছি। মামলা হয়েছে শুনেছি, তবে আমার কাছে এ ব্যাপারে কেউ কোন তথ্য চাইনি।