December 5, 2021

Jagobahe24.com

সত্যের সাথে আপোসহীন

কালীগঞ্জে উচ্চ ফলনশীল জাতের রবি-১ জাতের পাট বীজ উৎপাদন করতে ঝুকছে কৃষকরা

কালীগঞ্জে উচ্চ ফলনশীল জাতের রবি-১ জাতের পাট বীজ উৎপাদন করতে ঝুকছে কৃষকরা

কালীগঞ্জে উচ্চ ফলনশীল জাতের রবি-১ জাতের পাট বীজ উৎপাদন করতে ঝুকছে কৃষকরা

ঝিনাইদহ-
ঝিনাইদহ কালীগঞ্জে উচ্চ ফলনশীল জাতের রবি-১ জাতের পাট বীজ উৎপাদন করতে ঝুকে পড়েছে এলাকার কৃষকরা। নতুন জাতের এই পাট বীজ তোষা জাতের পাট বীজের চেয়েও বেশি ফলন পাচ্ছে কৃষকরা। যে কারণে তারা এ আবাদে ঝুকে পড়েছে। মাত্র ১১০ দিনে পাট বীজ সংগ্রহ কারা সম্ভব। অন্যান্ন পাটের বীজের চেয়ে এ পাটে অন্তত ২০ শতাংশ বেশি বীজ পাচ্ছে। অধিক লঅভের আশায় এলাকার কৃষকরা রবি ১ জাতের পাটের বীজ আবাদ করতে বেশি আগ্রহী হয়ে উঠেছে।কালীগঞ্জ উপজেলার সিমলা রোকনপুর, ত্রিলাচানপুর, এলাঙ্গি এলাকায় এ আবাদ বেশি হয়েছে। কৃষকরা বানিজ্যিক ভিত্তিতে আবাদ করছে। বর্তমানে ১৬৮ বিঘা জমিতে ৯৭ জন কৃষক রবি ১ জাতের পাট আবাদ করে বীজ উৎপাদন করছে। বীজের লক্ষমাত্রা নির্ধারন করা হয়েছে ৭৬২ মন বীজ পাবেন বলে কৃষকরা আশা করছেন। প্রতি মন বীজ বিক্রি হবে ৬০০০ হাজার টাকা দরে। ভারতীয় পাটের বীজের বাজার ঠেকাতে ও দেশিয় পাট রোপনের জন্য ফেরোমন ইষ্ট্রাস্ট্রিজ কোম্পানি নামের একটি প্রতিষ্ঠান এলাকার কৃষকদের পাশে দাড়িয়েছে। কৃষক কোম্পানিদের সংযোগিতা করছে কালীগঞ্জ উপজেলা কৃষি অফিসএবং ইউএসএআইডি। প্রতি বছর ভারতীয় পাট বীজে বাংলাদের কুষকরা পাট রোপন করে থাকে। অনেক সময় ভারতীয় বীজে পাটের ফলন তেমন হয় না আবার কোন কোন সময় নষ্ট বীজ জমিতে রোপন করে চারা গজায় না। ফলে কৃষকরা মারাতœক ক্ষতিগ্রস্থ হয়। লোকসান খেতে হয় কৃষকদের। ভারতীয় বিজের দাম ও অনেকটা বেশি হবার কারণে কৃষকদের পড়তে হয় হুমকির মুখে। ফলে সোনালী আসের পুরাতন গৌরব দেশে ফিরিয়ে আনতে নতুন উদ্যোগ হাতে নিয়ে মাঠে নেমেছে বাংলাদেশ পাট গবেষনা ইনষ্ট্রিটিউট। ফোরোমন কোম্পানি ৯৭ জন কৃষককে দিয়ে পাট উৎপাদন করার জন্য মিশন হাতে নিয়েছে। কোম্পানির বেশ কিছিু কর্মীরা সার্বক্ষনিক মাঠ পর্যায় থাকে কৃষকদের সহযোগিতা করতে। মাঠ পর্যায়ের কর্মলা ও কৃষকরা ধারনা করছে প্রতি বিঘা জদিতে ৪ থেকে সাড়ে ৪ মন পাট বীজ পাওয়া যাবে বলে এমনটি আশা করছেন। বড় সিমলা গ্রামের আবু জাফর নামে এক কৃষক বলেন, তিনি এবার ১ একর জমিতে রবি ১ জাতের পাট রোপন করেছে। এর আগে ও তিনি এ জাতের পাট চাষ করে বীজ উৎপাদন করে অনেক টা লাভবান হয়েছেন। যে কারণে এবার বেশি করে রোপন করেছেন। তিনি বলেন এবার ১১ থেকে ১৩ মন রবি ১- জাতের বীজ উৎপাদন করতে পারবেন বলে আশা করছেন। ১১০ দিনে ৭২ থেকে ৭৫ হাজার টাকা আয় করতে পারবেন। খরচ সম্পর্কে বলেন এক একর জদিতে তিনি ব্যায় করেছে প্রায় ১২ হাজার টাকা। ফেরোমন ইন্ডাস্ট্রিজ প্রডাকশন এর সুপারভাইজার জহুরুল ইসলাম বলেন, ৩ ই্উনিয়নে ৯৭ জন কৃষক এই পাট বীজ রোপন করেছে। আগামী বছর আর বেশি কৃষক এ পাটের বীজ উৎপাদন করবে বলে কৃষকরা জানিয়েছে। বরি -১ জাতের বীজ রোপন করলে কৃষকদের কারিগরি সহয়োগিতা করবে এ কোম্পানি।
কালীগঞ্জ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শিকদার মোহায়মেন আক্তার জানান, যে সকল কৃষকরা এই পাট বীজ উৎপাদন করেছে তাদের কে কৃষি অফিসের পক্ষ থেকে প্রশিক্ষন দেওয়া হয়েছে। এই পাট বীজ কৃষকরা রোপন করে অল্প দিনে কৃষকরা অধিক লাভবান হবেন।