October 18, 2021

Jagobahe24.com

সত্যের সাথে আপোসহীন

রোপা আমন ক্ষেতে ক্ষতিকর পোকার উপস্থিতি শনাক্ত ও করণীয় নির্ধারনে আলোক ফাঁদ কার্যক্রম

রোপা আমন ক্ষেতে ক্ষতিকর পোকার উপস্থিতি শনাক্ত ও করণীয় নির্ধারনে আলোক ফাঁদ কার্যক্রম

রোপা আমন ক্ষেতে ক্ষতিকর পোকার উপস্থিতি শনাক্ত ও করণীয় নির্ধারনে আলোক ফাঁদ কার্যক্রম

এস.এম.রকি,খানসামা (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ ধানের পোকা মাকড় দমনে আলোক ফাঁদ একটি পরিবেশ বান্ধব প্রযুক্তি। এ পদ্ধতি ব্যবহার করে স্বল্প খরচে কৃষক সহজেই দমন করতে পারছেন ক্ষতিকর সব পোকামাকড় । ফলে ফসল হয়। সেই জন্য দিনাজপুরের খানসামা উপজেলায় রোপা আমন ক্ষেতে ক্ষতিকর পোকার উপস্থিতির হার শনাক্তকরণের লক্ষ্যে আলোক ফাঁদ কার্যক্রম শুরু করেছে উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর।

জানা যায়, উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় কৃষি বিভাগ এই কার্যক্রম পরিচালনা করে। এতে দেখা যায় বর্তমানে পোকার আক্রমণ কম আর আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে রোপা আমনের বর্তমান মৌসুমে ভালো ফলন হবে।

কৃষি বিভাগ জানায়, সন্ধ্যার পর ধান ক্ষেত হতে ৫০ থেকে ১০০ মিটার দূরে ফাঁকা জায়গায় বাঁশের তিনটি খুঁটি ত্রিকোণাকার করে মাটিতে পুঁতে মাথার অংশ একত্রে বেঁধে দিতে হয়। এরপর মাটি থেকে আড়াই থেকে তিন ফুট উপরে একটি বৈদ্যুতিক বাল্ব জ্বালিয়ে খুঁটির তিন মাথার সংযোগস্থলে রশির সাহায্য ঝুলিয়ে দিতে হবে। এর নিচে একটি বড় আকারের প্লাস্টিকের গামলা বা পাত্রে ডিটারজেন্ট পাউডার অথবা কেরোসিন মিশ্রিত পানি রাখা হয়। সন্ধ্যার পর মাঠজুড়ে যখন অন্ধকার নেমে আসতে থাকে তখন আলোক ফাঁদের আলোয় আকৃষ্ট হয়ে ক্ষেতের বিভিন্ন পোকামাকড় এ পাত্রে চলে আসে।

বর্তমানে ধান ক্ষেতে বৈদ্যুতিক বাল্বের পাশাপাশি সৌর বিদ্যুতের আলোক ফাঁদও ব্যবহার করা হয়ে থাকে। এভাবে আলোক ফাঁদ ব্যবহার করে ধান ফসলের মাঠে ক্ষতিকর ও উপকারী পোকামাকড়ের উপস্থিতি নির্ণয় পূর্বক নিয়ন্ত্রণের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়। অতি অল্প খরচে তৈরি আলোক ফাঁদ অন্ধকার রাতে দেখতে দৃষ্টিনন্দনও বটে। এতে খরচ কম হয় এবং পরিবেশবান্ধব।

উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়,চলতি রোপা-আমন মৌসুমে লক্ষ্যমাত্রা ১৩৭৫৬ হেক্টর ছাড়িয়ে ১৩৭৬৫ হেক্টর জমিতে রোপণ করা হয়েছে।

ছাতিয়ানগড় গ্রামের কৃষক দয়াল চন্দ্র রায় বলেন, আলোক ফাঁদ পদ্ধতির ফলে ধান ক্ষেতে পোকার আক্রমণ হার শনাক্ত করে পোকা দমনে সহজেই ব্যবস্থা নেয়া যায়।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা বাসুদেব রায় বলেন, ক্ষেতে রোগবালাই আক্রমণ কমাতে ও ধানের ফসল রক্ষায় করণীয় নির্ধারণের জন্য আলোক ফাঁদ কার্যক্রমের মাধ্যমে পোকা মাকড়ের উপস্থিতি শনাক্ত করা হয়। সেই অনুযায়ী কৃষকদের প্রয়োজনীয় পরামর্শ দেওয়া হয়। এই কার্যক্রম চলমান থাকবে।