September 18, 2021

Jagobahe24.com

সত্যের সাথে আপোসহীন

আওয়ামী লীগ কার্যনির্বাহী কমিটির সভা অনুষ্ঠিত

আওয়ামী লীগ কার্যনির্বাহী কমিটির সভা অনুষ্ঠিত

এক বছর পর বৈঠকে বসছে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটি

এক বছর পর বৈঠকে বসছে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদ, যেখানে তৃণমূল থেকে শুরু করে কেন্দ্র পর্যন্ত দলের সাংগঠনিক স্থবিরতা কাটাতে সম্মেলনসহ নানা বার্তা আসবে বলে জানিয়েছে দলের নেতারা। আওয়ামী লীগের সবশেষ কার্যনির্বাহী সংসদের বৈঠক হয়েছিল গত বছরের ৩ অক্টোবর।
করোনাভাইরাস মহামারীর মধ্যে সেবার বৈঠক হয়েছিল সীমিত পরিসরে স্বল্প সংখ্যক সদস্যকে নিয়ে। সেই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন কার্যনির্বাহী সংসদে ৩২ সদস্য। 
মহামারীর মধ্যে এরপর আর বৈঠক হয়নি। ১১ মাস বিরতির পর বৃহস্পতিবার ফের বৈঠকে বসছে ক্ষমতাসীন দলটির কেন্দ্রীয় কমিটি।
বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টায় আওয়ামী লীগ সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারি বাসভবন গণভবনে অনুষ্ঠিত হবে এ বৈঠক। এতে সভাপতিত্ব করবেন শেখ হাসিনা।
কেন্দ্রীয় নেতারা জানিয়েছেন, কার্যনির্বাহী সংসদের এ বৈঠকে মোট ৫৩ জনের উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে। 
দলের সভাপতি শেখ হাসিনা ও সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের ছাড়াও অংশ নেবেন সভাপতিমণ্ডলীর ১০ সদস্য, তিনজন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, আটজন সাংগঠনিক সম্পাদক, ১২ জন সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য এবং ১০ জন কার্যনির্বাহী সদস্য থাকবেন বৈঠকে।
কেন্দ্রীয় নেতারা বলছেন, মহামারীর কারণে যে সাংগঠনিক স্থবিরতা চলছে, তা কাটিয়ে কীভাবে দলকে শক্তিশালী অবস্থানে নেওয়া যায়, সে বিষয়ে শীর্ষ নেতৃত্বের পরামর্শ চাওয়া হবে বৈঠকে। এছাড়াও আসন্ন জাতীয় নির্বাচন ও স্থানীয় সরকার নির্বাচনকে সামনে রেখে নির্বাচনমুখী তৎপরতা বাড়ানোর বিষয়েও আলোচনা হতে পারে।
যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ বলেন, “করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে দলের সাংগঠনিক কিছুটা স্থবিরতা সৃষ্টি হয়েছে, তা কাটিয়ে কীভাবে দলকে শক্তিশালী অবস্থানে নেওয়া যায়, সে বিষয়ে সভানেত্রী দিক নির্দেশনা দেবেন।”
তাছাড়া তৃণমূল থেকে জেলা মহানগর পর্যন্ত সব ইউনিটের সম্মেলন সম্পন্ন করার নির্দেশনাও আসবে বলে জানান তিনি।
“আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সম্মেলনের আগেই আমরা সকল ইউনিটের সম্মেলন সম্পন্ন করতে চাই।”
সম্প্রতি বিভিন্ন এলাকায় দলের মধ্যে যে কোন্দল দেখা যাচ্ছে, তা দূর করা নিয়েও আলোচনা হতে পারে বলে জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় নেতারা। 
যুগ্ম সাধারণ সম্পাদব আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম  বলেন, “অনেক দিন পর বৈঠক বসছে। নানা ধরনের বিষয় তো থাকেই। তবে মূলত সাংগঠনিক নানা আলোচনা হবে।
“সাংগঠনিক যে জটিলতাগুলো আছে, সেগুলো নিরসনে নেত্রী দিক নির্দেশনামূলক বক্তব্য রাখবেন। সেখানে আমাদের আলোচনা থাকবে। বিভিন্ন জায়গার সাংগঠনিক সমস্যাগুলো থাকবে। বিভিন্ন সময় আমরা যে নানা পরিস্থিতিতে পড়ি, সেখানে আমরা কীভাবে কাজ করব, তার পরামর্শ চাইব আমরা।”