September 22, 2021

Jagobahe24.com

সত্যের সাথে আপোসহীন

গাইবান্ধার বালাসীঘাটে ফেরি চলাচলের দাবীতে নাগরিক মঞ্চের সড়ক অবরোধ

গাইবান্ধার বালাসীঘাটে ফেরি চলাচলের দাবীতে নাগরিক মঞ্চের সড়ক অবরোধ

গাইবান্ধার বালাসীঘাটে ফেরি চলাচলের দাবীতে নাগরিক মঞ্চের সড়ক অবরোধ

গাইবান্ধা ঃ গাইবান্ধার ফুলছড়ি উপজেলার বালাসীঘাট থেকে জামালপুর জেলার বাহাদুরাবাদঘাট পর্যন্ত ফেরি সার্ভিস চালুর দাবীতে বিক্ষোভ মিছিল-সমাবেশ ও সড়ক অবরোধ কর্মসূচি পালিত হয়েছে।
সোমবার (৩০ আগস্ট) দুপুরে ফুলছড়ি উপজেলার কঞ্চিপাড়া ইউনিয়নের বালাসীঘাট এলাকায় এসব কর্মসূচি পালন করেন গাইবান্ধা নাগরিক মঞ্চ।
মঞ্চের জ্যেষ্ঠ সদস্য ওয়াজিউর রহমান রাফেলের সভাপতিত্বে এবং বাংলাদেশের সাম্যবাদী আন্দোলনের জেলা সদস্য সচিব মন্জুর আলম মিঠুর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সমাবেশে নাগরিক মঞ্চের সদস্য সচিব অ্যাড. সিরাজুল ইসলাম বাবুসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দের মধ্যে বক্তব্য দেনবাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) কেন্দ্রীয় কমিটির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও জেলা সভাপতি মিহির ঘোষ, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ) জেলা সভাপতি গোলাম মারুফ মনা, ফুলছড়ি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জিএম সেলিম পারভেজ, গণফোরাম জেলা সভাপতি ময়নুল ইসলাম রাজা,গাইবান্ধা দোকান মালিক সমিতির সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা মকসুদার রহমান শাহান, প্রবীণ সাংবাদিক এসকে মজিদ মুকুল, ওয়ার্কার্স পার্টির জেলা সভাপতি প্রণব চৌধুরী খোকন, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের জেলা সভাপতি মোন্তফা মনিরুজ্জামান, বাংলাদেশের সাম্যবাদী আন্দোলনের জেলা আহবায়ক অ্যাড. নওশাদুজ্জামান, কঞ্চিপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান আঃ রহমান লিটন, বাসদ (মার্কসবাদী) জেলা সদস্য কাজী আবু রাহেন শফিউল্যাহ, জাহাঙ্গীর কবীর তনু, সাংবাদিক হেদায়তুল ইসলাম বাবু, মানবাধিকার কর্মী অঞ্জলি রানী দেবী ও যুব ইউনিয়ন নেতা রানু সরকার প্রমুখ।
অবিলম্বে বালাসীঘাট থেকে বাহাদুরাবাদঘাট পর্যন্ত ফেরি সার্ভিস চালুর দাবী জানিয়ে বক্তারা বলেন, এই বিপুল পরিমাণ রাষ্ট্রীয় অর্থ অপচয়ের সাথে জড়িত ব্যক্তিদের শাস্তি ও দূর্ণীতির উৎস খুঁজে বের করে শ্বেতপত্র প্রকাশ এবং উত্তরবঙ্গে প্রবেশের বিকল্প পথ হিসেবে গাইবান্ধার বালাসীতে ফেরি চলাচলসহ ব্রহ্মপুত্র সেতু বাস্তবায়নের আন্দোলনে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার জন্য সকলের প্রতি আহবান জানান।
উল্লেখ্য; বালাসীঘাট থেকে বাহাদুরাবাদঘাট পর্যন্ত ফেরি সার্ভিস চালুর জন্য বিআইডাব্লিউটিএ ১৪৫ কোটি টাকা ব্যয়ে টার্মিনালসহ অবকাঠামো নির্মাণ করেছে। কিন্তু স¤প্রতি বিআইডাব্লিউটিএর এক প্রতিবেদনে এই পথে আর ফেরি চালু করা সম্ভব নয় বলে উল্লেখ করা হয়। সম্ভাব্যতা যাচাই বাছাই ছাড়াই প্রকল্প বাস্তবায়ন করায় এই ফেরি রুটটি চালু করা সম্ভব হচ্ছে না বলে কর্তৃপক্ষ জানায়। এরপর থেকেই বালাসিঘাট থেকে বাহাদুরাবাদঘাট পর্যন্ত ফেরি সার্ভিস চালু এবং ব্রহ্মপুত্র সেতু বাস্তবায়নের আন্দোলনে নামে গাইবান্ধা নাগরিক মঞ্চ।