November 29, 2021

Jagobahe24.com

সত্যের সাথে আপোসহীন

গাইবান্ধায় স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগ মেম্বার প্রার্থী স্বামী পলাতক

গাইবান্ধায় স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগ মেম্বার প্রার্থী স্বামী পলাতক

গাইবান্ধায় স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগ মেম্বার প্রার্থী স্বামী পলাতক

গাইবান্ধা ঃ গাইবান্ধা সদর উপজেলার খোলাহাটী ইউনিয়নের উত্তর খোলাহাটী গ্রামে ফজলে রাব্বী নামক ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের মেম্বার প্রার্থীর বিরুদ্ধে নিজ স্ত্রী রতনা বেগম (২৮) নামে এক গৃহবধূকে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। স্বজনদের অভিযোগ রাত ভর নির্যাতন করে স্ত্রী রতনাকে হত্যা করে ঘরে রেখে দিয়েছিল স্বামী ফজলে রাব্বী। আজ ৮ নভেম্বর সোমবার সকালে পুলিশ ওই গ্রাম থেকে রতনা বেগমের লাশ উদ্ধার করে। অভিযুক্ত স্বামী ফজলে রাব্বী আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সদর উপজেলার ৯ নং খোলাহাটি ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ( মেম্বার) পদ প্রার্থী হিসাবে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন । এ ঘটনার পর হতে স্বামী ফজলে রাব্বী পলাতক রয়েছেন।
স্থানীয়রা জানান, গত ৭ নভেম্বর রোববার সকালে ফজলে রাব্বী তার নয় বছরের ছেলেকে মারপিট করতে থাকে। এসময় স্ত্রী রতনা বেগম সন্তানকে মারতে বাধা দেয়। এ নিয়ে তাদের মধ্যে বাগবিতন্ডা হয়। এরই একপর্যায়ে ফজলে রাব্বী রাতে তার স্ত্রীকে বেধরক মারপিট করে। সোমবার সকালে ঘরের মধ্যে রতনার লাশ দেখতে পেয়ে স্থানীয় লোকজন থানায় খবর দিলে পুলিশ এসে লাশ উদ্ধার করে।
জানা গেছে, গাইবান্ধার ফুলছড়ি উপজেলার কঞ্চিপাড়া গ্রামের মৃত জাহাঙ্গীর আলমের মেয়ে রতনা বেগমের সাথে সদর উপজেলার উত্তর খোলাহাটী গ্রামের আব্দুল লতিফ মিস্ত্রীর ছেলে ফজলে রাব্বীর পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়। সংসার জীবনে তাদের নয় বছর ও তিন বছর বয়সের দুটি ছেলে
সন্তান রয়েছে।

এদিকে নিহতের মা গোলেজা বেগম বলেন, বিয়ের পর থেকে বিভিন্ন সময় রতনার উপর নানা নির্যাতন করে আসছিল তার মেয়ে জামাই ফজলে রাব্বী। এর আগে স্থানীয়রা কয়েকটি গ্রাম শালিস করেন। কিন্তু তার কিছুদিন পর আবার নির্যাতন করে রাব্বী। তিনি বলেন, আমার মেয়েকে
রাতে হত্যা করে ঘরে লাশ রেখে দিয়েছে রাব্বি। আমি এই হত্যাকারীর ফাঁসী চাই।
বিষয়টি নিশ্চিত করে গাইবান্ধা সদর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি তদন্ত) আব্দুর রউফ সাংবাদিকদের বলেন, ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য গাইবান্ধা জেলা হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসার জন্য এক নারীকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায়
পরিবারের পক্ষ থেকে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানা যায়।