September 18, 2021

Jagobahe24.com

সত্যের সাথে আপোসহীন

চাঁদাবাজি মামলা করেও ১৫ দিনে কোন আসামি গ্রেফতার করেনি পুলিশ

চাঁদাবাজি মামলা করেও ১৫ দিনে কোন আসামি গ্রেফতার করেনি পুলিশ

চাঁদাবাজি মামলা করেও ১৫ দিনে কোন আসামি গ্রেফতার করেনি পুলিশ

কিশোরগঞ্জ (নীলফামারী) প্রতিনিধিঃ
কিশোরগঞ্জ উপজেলায় চাঁদাবাজি মামলা করার ১৫ দিন পেরেয়ি গেলেও কোন আসামি গ্রাফতার করতে বা কোন প্রকার পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি পুলিশ। আসামিরা পুলিশের নাকের ডগায় বসে থালেও গেফতার করছেনা কিশোরগঞ্জ থানা পুলিশ।
বাদীর মনে ভয়ের আশংকা বেড়ে যাচ্ছে। তিনি নিজের জীবন নিয়ে আংক্ষায় ভুগছেন। পাশাপাশি অব্যাহত রয়েছে আসামিদেন হুমকি, ফলে বাদী চরম বিপাকে পড়েছেন।
জানা গেছে, জিয়া এন্টার প্রাইজ নামে একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্টান চাঁড়ালকাটা নদীর খননকৃত ৩১ নম্বর লটের বালু নিলাম টেন্ডারে ক্রয় করেন। কিছু দিন আগে চাঁদাবাজরা চাঁদা না পেয়ে কেল্লাবাড়ী বাজার নামক স্থানে চারটি আটক করলে পুলিশ তা উদ্ধার করে দেয়। এছাড়া চাঁদাবাজরা ক্ষমতাশীন বলের লোক হওয়ায় তারা বালু পরিবহনের সরকারি রেকট কৃত রাস্তা খুড়ে গর্ত করেছে ও গাছ লাগিয়ে খুঁটি দিয়ে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে রেখেছে ।
এ ঘঁটনায় ঠিকাদার জিয়াউর রহমান জিয়া বাদী হয়ে ৯ জনকে নামীয় আসামী করে ও ১০ থেকে ১২ জনকে অজ্ঞাত নামা আসামী করে গত ১০ আগষ্ট কিশোরগঞ্জ থানায় একটি চাঁদাবাজির মামলা দায়ের করে। মামলা নং-০৫।
বালু লীজ কারী প্রতিষ্টানেরর মালিক জিয়াউর রহমান জিয়া অভিযোগ করে বলেন, চাঁদাবাজদের অব্যাহত হুমকিতে আমার জীবন সংকটাপন্ন । আসামীরা প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়ালেও পুলিশ তাদের দেখেও দেখছেনা।
এ বিষয়ে কিশোরগঞ্জ থানার ওসি আব্দুল আউয়াল কে তার সরকারি নাম্বার ২৬ আগষ্ট ০১৩২০-১৩৫৪৫৪ তে ০১৭১৮-৫০৬৪৫৭ নাম্বার দিয়ে বিকাল ৫ টা ৫ মিনিটে কল দিনি নাম্বারটি কেটে দেন।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা(এসআই) আক্কেল আলীর সাথে মুঠোফোন কথা বললে তিনি বলেন, কোন আসামি গ্রেফতার হয়নি কিন্তু মামলাটি কোর্টে পাটিয়ে দিয়েছেন।