June 24, 2021

Jagobahe24.com news portal

Real time news update

চিকিৎসক লিপি হত্যা: সাবলেটের মডেলকে ঘিরে সন্দেহ

চিকিৎসক লিপি হত্যা: সাবলেটের মডেলকে ঘিরে সন্দেহ

চিকিৎসক লিপি হত্যা: সাবলেটের মডেলকে ঘিরে সন্দেহ

রাজধানীর কলাবাগানে গ্রিন লাইফ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসক সাবিরা রহমান লিপির হত্যার ঘটনায় ওই বাসায় সাবলেটে থাকা মডেল কানিজ সুর্বণাকে সন্দেহ করেছেন মামলার বাদী।

নিহত ডা. সাবিরার মামাতো ভাই রেজাউল হাসান জুয়েল গত মঙ্গলবার মধ্যরাতে বাদি হয়ে কলাবাগান থানায় এ মামলা দায়ের করেন।

মামলার এজাহারে বাদি কানিজ এবং এক থেকে দুইজন মিলে লিপিকে নৃশংসভাবে হত্যা করেছে বলে অভিযোগ করেছেন। মামলায় অন্য সাবলেটে থাকা নূরজাহানকে বাদী সন্দেহ করেননি। কারণ তিনি ঘটনার দিন ছিলেন। তিনি ঈদে গ্রামের বাড়ি গিয়ে আর আসতে পারেননি।

জানা গেছে, কানিজ ওয়ার্ল্ড ইউনিভারসিটি থেকে গ্রাজুয়েশন সম্পন্ন করেছেন। মডেলিংয়ের পাশাপাশি দারাজ অনলাইনে কাজ করেন তিনি। চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে কানিজ লিপির ভাড়া বাসায় সাবলেটে উঠেছিলেন। তিনি এখন ঢাকা মহানগর ডিবি পুলিশের হেফাজতে আছেন।

এদিকে এ ঘটনায়  করা হত্যা মামলায় তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের আগামী ৮ জুলাই দিন ধার্য করেছেন আদালত। বুধবার ঢাকা মহানগর হাকিম রাজেশ চৌধুরী মামলার এজাহার গ্রহণ করে এ দিন ধার্য করেন।   

এর আগে, ৩১ মে কলাবাগানের একটি বাসা থেকে এ চিকিৎসকের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। তিনি গ্রিন লাইফ হাসপাতালের কনসালটেন্ট (সনোলজিস্ট) ছিলেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, গত সোমবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে আগুনের খবরে ওই বাসায় গিয়ে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ধোঁয়া দেখতে পান। নিহত চিকিৎসকের শরীরের কিছু অংশ দগ্ধ ছিল বলে জানান তারা। মরদেহ উদ্ধারের পর পিঠে দুটি ও গলায় একটি ধারালো অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন পায় পুলিশ।

সাবিরা কলাবাগানের ৫০/১ ফার্স্ট লেনের বাড়িটির একটি ফ্ল্যাটে ভাড়া থাকতেন। তিনি ফ্ল্যাটের দুটি রুম এক তরুণীকে সাবলেট হিসেবে ভাড়া দেন। সোমবার সকালে সাবলেটে থাকা তরুণী হাঁটতে বের হয়েছিলেন। তিনি বাসায় ফিরে দেখেন, সাবিরার রুম বন্ধ। রুমের ভেতর থেকে ধোঁয়া বের হচ্ছে।

পরে তিনি দারোয়ানকে ডেকে চাবি এনে রুমের তালা খুলে দেখতে পান সাবিরা ফ্লোরে পড়ে আছেন। সবাই ভেবেছিলেন, আগুনে পুড়ে মারা গেছেন। পরে ডিবি এসে তার গলায় একটি আঘাতের চিহ্ন ও পিঠে দুটি আঘাতের চিহ্ন পায়।