August 2, 2021

Jagobahe24.com

সত্যের সাথে আপোসহীন

ঝিনাইদহে মুক্তিপণ দাবি কারী সন্ত্রাসী গ্রুপের প্রধানসহ ৫ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে ঝিনাইদহ র‌্যাব-৬

ঝিনাইদহে মুক্তিপণ দাবি কারী সন্ত্রাসী গ্রুপের প্রধানসহ ৫ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে ঝিনাইদহ র‌্যাব-৬

ঝিনাইদহে মুক্তিপণ দাবি কারী সন্ত্রাসী গ্রুপের প্রধানসহ ৫ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে ঝিনাইদহ র‌্যাব-৬

ঝিনাইদহঃ
ঝিনাইদহ র‌্যাবের কোম্পানি কমান্ডার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কামাল উদ্দিনের নেতৃত্বে শহরের আরাপপুর এবং মুজিব চত্বর এলাকায় অভিযান চালিয়ে মুক্তিপণদাবিকারী সন্ত্রাসী গ্রুপের প্রধান লিখনসহ ৫ জন সদস্যকে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃতরা হলো, বসির বিশ্বাসের ছেলে লিখন বিশ্বাস (২৬), শাহাদত লস্করের ছেলে মিরাজ লস্কর (২০), জিন্নাহ বিশ্বাসের ছেলে তুহীন বিশ্বাস (২৩) ও কামরুল হোসেনের ছেলে রিপন হোসেন। এদের সবার বাড়ি ঝিনাইদহ সদর উপজেলার গিলাবাড়িয়া গ্রামে। এর আগে রাকিবুল ইসলাম (২৫) নামে আরো একজনকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। কোম্পানি কমান্ডার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কামাল উদ্দিন জানান, গ্রেফতারকৃত আসামীরা গত ২৩/০১/২১ ইং তারিখে খুলনা মিলিটারি কলেজিয়েট স্কুলের ছাত্রী যারীন ইয়াসমিন (১৮) তার বন্ধু শামীম আহমেদ (১৮) ঝিনাইদহ শহরের মহিষাকুন্ড এলাকায় পৌর পার্কে বেড়াতে আসেন। সেসময় বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে ৬/৭ জন সন্ত্রাসী যুবক তাদের পথরোধ করে জোরপূর্বক একটি পরিত্যক্ত ভবনে নিয়ে জিম্মি করে রাখে। তারা সেখানে তাদের মারধর করে, ছুরি দেখিয়ে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে একলাখ টাকা মুক্তিপণ দাবী করে বিকাশের মাধ্যমে কিছু টাকা নিয়ে নেয়। সন্ত্রাসীরা যারীনকে শ্লীলতাহানি করার চেষ্টা করে এবং তাদের সাথে থাকা সমস্ত টাকা পয়সা নিয়ে ছিনিয়ে নেয়। মেয়েটির স্কুল কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে এই সংবাদ পেয়ে ওই রাতেই ঝিনাইদহ র‌্যাব-৬ এর একটি বিশেষ দল ঘটনাস্থল থেকে ভিকটীম: যারীন ইয়াসমীন (১৮) ও শামীম আহমেদকে (১৮) উদ্ধার করে এবং ওই দিনই র‌্যাব রাকিবুল ইসলাম (২৫) নামে এক মুক্তিপণদাবিকারী সন্ত্রাসীকে গ্রেফতার করে। এরপর বাকিদের গ্রেফতারের জন্য র‌্যাব এর পিছনে কারা জড়িত তাদের খুজে করে বাকিদের গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। এ ঘটনায় যারীন ইয়াসমীন বাদী হয়ে ঝিনাইদহ সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করে। মামলা নং-৩২, তারিখ ২৪/০১/২১ ইং, ধারা-৩৪১/৩২৩/৩৮৫/৩৮৭/৩৪২/৫০৬ পেনাল কোড। উল্লেখ্য গ্রেফতারকৃত লিখন বিশ্বাস মুক্তিপণদাবীকারী সন্ত্রাসী গ্রপের প্রধান এবং উক্ত ঘটনার মূল পরিকল্পনাকারী ছিল।