August 4, 2021

Jagobahe24.com

সত্যের সাথে আপোসহীন

ডোমার রিপোর্টার্স ইউনিটির বিরুদ্ধে করা মামলা ডিসমিস করেছে আদালত।

ডোমার রিপোর্টার্স ইউনিটির বিরুদ্ধে করা মামলা ডিসমিস করেছে আদালত।

ডোমার রিপোর্টার্স ইউনিটির বিরুদ্ধে করা মামলা ডিসমিস করেছে আদালত

গোপাল চন্দ্র রায় – ডোমার(নীলফামারী)প্রতিনিধিঃ
ডোমার রিপোর্টার্স ইউনিটির বর্তমান কমিটির বিরুদ্ধে করা মামলা ডিসমিস করে দিয়েছে আদালত। ফলে ডোমার রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি জুলফিকার আলী ভুট্টো ও সাধারণ সম্পাদক রওশন আলম পাপ্পুর নেতৃত্বে গঠিত কমিটি বহাল রয়েছে।
ডোমার সহকারী জজ আদালতের বিজ্ঞ বিচারক জয় কিশোর নাগ মামলাটি দীর্ঘ পর্যালোচনা শেষে গত ২১জুন এ সংক্রান্ত একটি আদেশ দেন। আদেশে বিবাদী পক্ষের ১ থেকে ১৩নং বিবাদীর বিরুদ্ধে বিনা খরচায় মামলাটি ডিসমিস(খারিজ) করা হয়। বাদী পক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন এ্যাডভোকেট তারিনী মোহন অধিকারী এবং বিবাদী পক্ষে ছিলেন এ্যাডভোকেট আজাহারুল ইসলাম।
উল্লেখ্য যে, ডোমার রিপোর্টার্স ইউনিটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান হিল্লোল গত ১২/০১/২০১৮ ইং তারিখে গঠিত কমিটিতে পদ পদবী না পেয়ে নিজেকে সভাপতি ঘোষনা করে সাংবাদিক নয় এমন ১৯ব্যাক্তিকে নিয়ে একটি ভূয়া কমিটি তৈরী করে বর্তমান কমিটির বিরুদ্ধে ডোমার সহকারী জজ আদালতে একটি মামলা করেন। মামলা নং- ৮/১৮। ৩বছর মেয়াদের কমিটির বিরুদ্ধে করা মামলাটি সাড়ে তিন বছর ধরে চলে।  অবশেষে গত ২১জুন বাদীর করা ওই মামলা বিনা খরচায় ডিসমিস(খারিজ)করে দেন আদালত। ফলে ডোমার রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি জুলফিকার আলী ভুট্টো ও সাধারণ সম্পাদক রওশন আলম পাপ্পুর নেতৃত্বে গঠিত কমিটি বহাল রয়েছে।
একটি সূত্র জানায়, পশু চিকিৎসক আসাদুজ্জামান হিল্লোল একজন মামলাবাজ ব্যাক্তি হিসেবে এলাকায় পরিচিত।  তিনি ২২টি মামলার সাথে সম্পৃক্ত। এসকল মামলার কোনোটিতে বাদী, কোনোটির বিবাদী এবং কোনোটিতে তিনি সাক্ষী রয়েছেন। সমাজে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির জন্য তিনি সাধারণ মানুষকে মামলায় ঠেলে দিয়ে ফায়দা নেয়ার চেষ্টা করে।
এ বিষয়ে বিবাদী পক্ষের আইনজীবী এ্যাডভোকেট আজাহারুল ইসলাম বলেন, বাদীপক্ষ ভূয়া কমিটি তৈরী করে আদালতের মাধ্যমে রায় নিতে আসেন। তাদের গঠিত কমিটির কেউ সাংবাদিক নয়। পত্রিকার আইডি কার্ড এবং তাদের শিক্ষাগত যোগ্যতার কোন সনদ আদালতে উপস্থাপন করতে পারেনি। আদালত সকল কাগজপত্র যাচাই বাছাই শেষে বাদীর দায়ের করা মামলা খারিজ(ডিসমিস) করে দেন।