October 20, 2021

Jagobahe24.com

সত্যের সাথে আপোসহীন

নিয়ামতপুরে তথ্য সংগ্রহকালে সাংবাদিকের উপর সন্ত্রাসীদের হামলা

নিয়ামতপুরে তথ্য সংগ্রহকালে সাংবাদিকের উপর সন্ত্রাসীদের হামলা

নিয়ামতপুরে তথ্য সংগ্রহকালে সাংবাদিকের উপর সন্ত্রাসীদের হামলা

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ নওগাঁর নিয়ামতপুর উপজেলার ৩নং ভাবিচা ইউনিয়নের পাইকড়া বাজারে তথ্যসংগ্রহ করা কালে ২ সাংবাদিকের উপর হামলা চালিয়ে, তাদের ব্যবহৃত একটি ডিএসএলআর ক্যামেরা ও নগদ টাকা ছিনিয়ে নিয়েছে স্থানীয় একদল সন্ত্রাসী । এসময় সন্ত্রাসীদের হামলায় আহত হয়েছেন দৈনিক গনকণ্ঠের স্টাফ রিপোর্টার ও এ এন নিউজ টুয়েন্টি ফোর ডট নেটের সম্পাদক আলমগীর মন্ডল এবং দৈনিক ভোরের ডাকের সিরাজুল ইসলাম । খোঁজ নিয়ে জানা যায়, গত ১৫ মে দিন গত রাত সাড়ে ১২টার দিকে পাইকড়া এলাকার জৈনক আলাউদ্দিন দেওয়ানের বসত ঘরের সামনে ও পিছনে থাকা ২টি খড়ের পালায় আগুন দিয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন একই এলাকার বেলালের বখাটে ছেলে ইমন । কিন্তু বাজারের নাইটগার্ড আলামিন ও নয়ন বখাটে ইমন কে ধরে ফেলেন । পরে খবর পেয়ে ইমনের বাবা বেলাল লোকজন সাথে নিয়ে ঘটনাস্থলে এসে আগুনে ক্ষতি গ্রস্থ পরিবারের ক্ষতি পূরণ দেওয়ার অঙ্গীকার করে ছেলেকে ছাড়িয়ে নিয়ে যায় । পরবর্তীতে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারটিকে ক্ষতিপূরণ না দিয়ে উল্টো ঐ পরিবারটিকে বিভিন্ন রকম ভয়ভীতি ও হুমকি দেয় বখাটে ইমনসহ তার সাঙ্গোপাঙ্গরা । পরে কোন উপায়ন্ত না পেয়ে ভুক্তভোগী আলাউদ্দিন দেওয়ান থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন এবং বিষয়টি স্থানীয় সাংবাদিকদের জানান । এরই প্রেক্ষিতে গত ১৭ই মে সন্ধ্যা আনুমানিক ৭টার দিকে ঘটনাস্থলে তথ্যসংগ্রহ করেতে যান সাংবাদিক আলমগির মন্ডল ও সিরাজুল ইসলাম । এসময় ঐ এলাকার দানেস আলীর ছেলে পুলিশের কথিত সোর্স পরিচয় দানকারী ও এলাকার চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী হাবিবুর রহমান (২৭)”র নেতৃত্বে, আব্দুস সাত্তারের ছেলে বেলাল হোসেন( ৩২), মজিবর রহমান মধুর ছেলে সাইদুর রহমান (৪০), নছরতউল্লাহর ছেলে সাদেক আলী (৭০)সহ একদল সন্ত্রাসী দেশীয় অস্ত্র সস্ত্রে সজ্জিত হইয়া অতর্কিত ভাবে হামলা চালায় ঐ ২ সাংবাদিকের উপর । এসময় সাংবাদিকদের সাথে থাকা একটি ডিএসএলআর ক্যামেরা ও নগদ ৮ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয় । এসময় দানেস আলীর ছেলে মাদক ব্যবসায়ী হাবিবুর রহমান বলতে থাকে আমরা এলাকার ইউপি সদস্যের লোক । এই এলাকায় আমাদের না জানিয়ে কোণ সাংবাদিকের ঢোকা নিষেধ তোরা জানিস না । এই বারের মত তোদের প্রাণটা ভিক্ষা দিলাম । পরবর্তী সময়ে যদি আর কোনদিন এই এলাকায় আসিস, তবে তোদের জানে মেরে ফেলবো বলে হুমকি দিয়ে তার দলবল নিয়ে চলে যায় । আর এই হামলার ঘটনাটি এলাকার অসংখ্য মানুষ জনের সামনে ঘটলেও জীবনের ভয়ে কেউ কোন কথা বলেননি । পরে সন্ত্রাসীরা ঘটনাস্থল ত্যাগ করার পর স্থানীয়রা ঐ ২ সাংবাদিককে উদ্ধার করেন । পরে তারা প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে নিয়ামতপুর থানায় গিয়ে উক্ত ঘটনায় জড়িত সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে পৃথক ২টি অভিযোগ দায়ের করেন । এ বিষয় জানতে নিয়ামতপুর থানায় যোগাযোগ করা হলে থানার অফিসার ইনচার্জ হুমায়ন কবির বলেন, উপরোক্ত ঘটনায় থানায় লিখিত অভিযোগ আমরা পেয়েছি এবং অভিযোগের বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে দেখা হচ্ছে । তদন্ত সাপেক্ষে সর্বোচ্চ আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে । এদিকে অভিযুক্তদের সাথে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাদের সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি ।