January 18, 2022

Jagobahe24.com

সত্যের সাথে আপোসহীন

পীরগঞ্জে সরকারি জমিতে স্থাপনা নির্মান বাধা দেয়ায় সহকারি কমিশনারের বিরুদ্ধে মামলা

পীরগঞ্জে সরকারি জমিতে স্থাপনা নির্মান বাধা দেয়ায় সহকারি কমিশনারের বিরুদ্ধে মামলা

পীরগঞ্জে সরকারি জমিতে স্থাপনা নির্মান বাধা দেয়ায় সহকারি কমিশনারের বিরুদ্ধে মামলা

অমিতাব বর্মণ, পীরগঞ্জ (রংপুর) প্রতিনিধি ঃ রংপুরের পীরগঞ্জে উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) কার্যালয়ের জমি দখল করে স্থায়ী স্থাপনা তৈরির চেষ্টায় বাধা দেয়ায় সহকারি ককিশনারের বিরুদ্ধেই আদালতে মামলা করেছে একটি স্থানীয় প্রভাবশালী পরিবার।
এলাকাবাসী ও সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়-দীর্ঘদিন ধরে পীরগঞ্জ উপজেলা সহকারি কমিশনার কার্যালয় চত্তরের ৩ শতাংশ জমি স্থানীয় প্রভাবশালী একটি পরিবারের সদস্য কাজী হামিদ আলী ও ছিমোতান্নাহার বেগম অবৈধ ভাবে দখল পুর্বক ভোগ করে আসছিল। উক্ত জমিতে ইতিপুর্বে মাটির দেয়াল দিয়ে টিনসেডের একটি বাড়ী নির্মান করা ছিল। কিন্তু বর্তমানে উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) বর্তমান মাঠরেকর্ড সহ অন্যান্য কাগজ পত্র সূত্রে জানতে পারেন যে, উক্ত জমি কোন ব্যাক্তি বা প্রতিষ্ঠানের নয়, এটি সরকারি সম্পত্তি । উক্ত সরকারি সম্পত্তি উদ্ধারে তিনি ( সহকারি কমিশনার ভূমি) অবৈধ দখলদারকে মালিকানার বৈধ কাগজপত্র দেখতে চাইলে অবৈধ দখলদার ব্যাক্তি তাহাদের প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সহকারি কমিশনার (ভূমি) কার্যালয়ে দাখিল করে। কিন্তু তাদের প্রয়োজনীয় দলিল ও কাগজপত্র পর্যালোচনা করে দেখা যায়-উক্ত কাগজ পত্রে তাহাদের কোন বৈধতা নেই। যা রয়েছে তার সাথে জমির মালিকা, দলিল নং, দলিল সম্পাদনের তারিখ, জমিদাতা কোন তথ্যেরও কোন মিল নেই। পাশাপাশি অবৈধ দখলদারদের দলিলে যে সকল তথ্য রয়েছে সে মোতাবেক জমি মূলত পীরগঞ্জ মৌজায় নয়, জমি দেখা যায় উপজেলার বড় আলমপুর ইউনিয়নের পতিœচড়া মৌজায়। অথচ সি এস-৯৫ মোতাবেক দখলকৃত জমিটির মালিক দেখা যায়-গ্যানেন্দ্র নাথ, হরেন্দ্রনাথ ও সচিন্দ্রনাথ চক্রবর্তি। তাহারা ১৯৪৮ সালের পর ভারতে পারি জমিয়েছেন, বিধায় বিধি মোতাবেক উক্ত জমি সরকারের খতিয়ান ভুক্ত হয়েছে। এ সকল বিষয় পর্যালোচনা পুর্বক সহকারি কমিশনার অবৈধ দখলদারকে জায়গাটি দখল ছেড়ে দেয়ার নির্দেশ দেন। কিন্তু উক্ত নির্দেশের পর জমির দখল ছেড়ে দেয়া তো দূরের কথা, কোমর বেধে নেমে পড়েন উক্ত স্থানে উক্তস্থানে ইমারত নির্মানে । জোর পুর্বক লোকজন সহ রাতারাতি ভিত্তি দিয়ে ফেলেন ৫তলা বিল্ডিংয়ের। সেই সাথে খুব তোরে জোরে চলতে থাকে কাজ। এদিকে উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) সরকারের দাপ্তরিক নিয়ম নীতি মোতাবেক উক্ত কাজে বাধা দিয়ে কাজ বন্ধ করে দেন। এরই পরিপেক্ষিতে গত ১০ নভেম্বর/২১ইং তারিখে অবৈধ দখলদারের পক্ষে রংপুর বিজ্ঞ সিনিয়র সহকারি জজ আদালতে ছিমোন্নাহার বেগম বাদী হয়ে উপজেলা সহকারি কমিশনারের বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যবহারের একটি মামলা আনয়ন করেছেন।
এ ব্যাপারে অবৈধ দখলদার কাজী হামিদ আলী ও ছিমোতান্নাহার বেগম এর সাথে কথা হলে তিনি বলেন-আমরা উক্ত জমি দীর্ঘদিন ধরে ভোগদখল করে আসছি এবং আমাদের সঠিক কাগজ রয়েছে। সহকারি কমিশনার আমাদের উপর ক্ষমতার অপব্যবহার করছে।
অপরদিকে সহকারি কমিশনার (ভূমি) খায়রুল ইসলামের সাথে কথাহলে তিনি বলেন-আমি প্রজাতন্ত্রের একজন কর্মকর্তা। সরকারের সম্পদ রক্ষাসহ সর্ব সাধারনের জমাজমির স্বার্থ রক্ষাই আমার কাজ। যিনি আমার চেয়ার এর বিরুদ্ধে মামলা করেছেন তিনি ভূল করেছেন, তবে যেহেতু মামলা করেছেন সেহেতু দেশের প্রচলিত আইনে এটির সুরাহা হবে। তিনি আরও বলেন-পীরগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় সরকারের অসংখ্য জমি অবৈধ দখলদারদের দখলে রয়েছে। পর্যায়ক্রমে সেগুলো উদ্ধার করা হবে। এ ক্ষেত্রে সচেতন নাগরিকদের সহযোগিতায় এগিয়ে আসতে হবে।