January 28, 2022

Jagobahe24.com

সত্যের সাথে আপোসহীন

ফুলবাড়ীর পল্লীতে পূর্বের শত্রুতার জের ধরে প্রতিপক্ষের মারপিট ও হত্যার চেষ্ঠা॥

ফুলবাড়ীর পল্লীতে পূর্বের শত্রুতার জের ধরে প্রতিপক্ষের মারপিট ও হত্যার চেষ্ঠা॥

ফুলবাড়ীর পল্লীতে পূর্বের শত্রুতার জের ধরে প্রতিপক্ষের মারপিট ও হত্যার চেষ্ঠা॥

মোঃ আফজাল হোসেন, ফুলবাড়ী, দিনাজপুর প্রতিনিধি:

ফুলবাড়ী উপজেলার কাজিহাল ইউপির নুর মামুদপুর গ্রামের রমনাথ রায়ের পূত্র শ্যামল চন্দ্র (৪০) এর ফুলবাড়ী থানায় গতকাল শুক্রবার (১৪ই জানুয়ারী২০২২)ইং তারিখে দায়েরকৃত অভিযোগসূত্রে জানা যায়, নুর মামুদপুর গ্রামের শ্যামল চন্দ্র রায় ইতোপূর্বে রামেশ^রপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক চন্দন কুমার রায়(৪২) রাস্তার সরকারি গাছ কাটিলে শ্যামল চন্দ্র রায় বাদী হয়ে ফুলবাড়ী উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর লিখিত অভিযোগ করেন। অভিযোগ করার জের ধরে উক্ত প্রধান শিক্ষক চন্দন কুমার রায় ক্ষিপ্ত হয়ে গতকাল শুক্রবার সকাল ১০টায় বাড়ীর রাস্তার পাশে সুযোগ বুঝে তাকে আটক করে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে এবং শ্যামল চন্দ্র রায় প্রতিবাদ করলে তাকে মারপিট করে এবং গলা টিপে হত্যার চেষ্টা করে।

এ সময় বাঁচাও বাঁচাও বলে চিৎকার করলে, এলাকায় থাকা তালা মুরমু, পুষ্পরানী, জবারানী ও এলাকার লোকজন ছুটে এসে তাকে উদ্ধার করে। তিনি অল্পের জন্য প্রাণে বেঁচে যান। বিষয়টি নিয়ে, এলাকার লোকজনের সাথে কথা বলে তার বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ করেন।
এ ব্যাপারে শ্যামল চন্দ্র রায়, বাদী হয়ে ফুলবাড়ী থানায় রামেশ^রপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক চন্দন কুমার রায়কে আসামী করে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

এ বিষয়ে, অভিযোগকারী শ্যামল চন্দ্র রায়, সাংবাদিককে জানান, এলাকার লোকজন এগিয়ে না এলে আমাকে প্রাণে মেরে ফেলতো। অল্পের জন্য বেঁচে যাই। এ বিষয়ে আমি তদন্তসাপেক্ষে প্রশাসনের নিকট ন্যায় বিচার চাই। অন্যদিকে রামেশ^র উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক চন্দন কুমার রায় এর সাথে গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় মোবাইল ফোনে কথা বললে তিনি জানান, সামান্য কথা কাটাকাটি হয়েছে আমার পুকুরে আমাকে না বলে শ্যালো মেশিন লাগিয়ে পানি সেচছিল। যেহেতু আমি ওই পুকুরের অংশ পাই। এ বিষয়ে ফুলবাড়ী থানার ডিউটি অফিসার অভিযোগটি গ্রহণ করে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবেন বলেন জানান।