October 20, 2021

Jagobahe24.com

সত্যের সাথে আপোসহীন

ভারত থেকে অবৈধপথে দেশে আসা ৩ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত, অতপর পালানোর চেষ্টা!

ভারত থেকে অবৈধপথে দেশে আসা ৩ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত, অতপর পালানোর চেষ্টা!

ভারত থেকে অবৈধপথে দেশে আসা ৩ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত, অতপর পালানোর চেষ্টা!

ঝিনাইদহ-
ঝিনাইদহের মহেশপুর সীমান্ত দিয়ে অবৈধপথে ভারত থেকে দেশে ফেরা তিন জনের শরীরে করোনা সনাক্ত হয়েছে। তাদের শরীরে ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট থাকতে পারে এমন আশংকা করছে ঝিনাইদহ স্বাস্থ্য বিভাগ। বিষয়টি নিশ্চিত হতে পুনরায় তাদের নমুনা সংগ্রহ করে রোগতত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানে (আইইডিসিআর) পাঠানো হবে। শনিবার দুপুরে এ তথ্য নিশ্চিত করেন ঝিনাইদহ সিভিল সার্জন ডাঃ সেলিনা বেগম। এদিকে শুক্রবার করোনা আক্রান্ত রোগীসহ ৩জন আজাদ রেষ্ট হাউসের কোয়ারেন্টিন থেকে পালানোর চেষ্টা করে। পরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করে। জানা গেছে, গত ১০ মে ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার মাটিলা ও বাঁশবাড়িয়া এলাকা দিয়ে দালালসহ ২৮ জনকে আটক করে মহেশপুর ৫৮ বিজিবি। আদালতের নির্দেশে আটককৃদের ঝিনাইদহ শহরের আজাদ রেস্ট হাউজে কোয়ারেন্টিনে রাখাসহ প্রত্যেকের করোনা পরীক্ষার ব্যবস্থা করা হয়। কোয়ারেন্টিনে থাকা ওই ২৮ জনের মধ্যে তিনজনের করোনা পজিটিভ আসে। শুক্রবার (১৪ মে) সকালে কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ল্যাব থেকে এ ফলাফল পাঠানো হয়। শনাক্ত হওয়াদের মধ্যে দুজনের বাড়ি নাটোর এবং একজনের বাড়ি বরিশালে। এদিকে ওই তিনজন ভারতীয় ভ্যারিয়েন্টে আক্রান্ত কি না তা পরীক্ষার জন্য শনিবার পুনরায় তাদের নমুনা সংগ্রহ করে সরকারের রোগতত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানে (আইইডিসিআর) পাঠানো হবে বলে জানান ঝিনাইদহ সিভিল সার্জন ডা. সেলিনা বেগম বলেন। ভারত থেকে আসা ব্যক্তিদের শরীরে করোনা সনাক্ত হওয়ার খবরে ঝিনাইদহের বাসিন্দাদের অজানা আতংক দেখা দিয়েছে। এদিকে ঝিনাইদহ সদর থানার ওসি মিজানুর রহমান জানান, শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে আজাদ রেস্ট হাউজের কোয়ারেন্টিন থেকে করোনা পজিটিভ রোগীসহ দুজন পালানোর চেষ্টা করে। খবর পেয়ে অভিযান চালিয়ে পার্শ্ববর্তী একটি বাড়ির ছাদ থেকে তাদের আটক করা হয়। পরে করোনা আক্রান্তকে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ও অপর দুই জনকে আজাদ রেস্ট হাউজের কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়।’ বর্তমানে সেখানে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন এই পুলিশ কর্মকর্তা। উল্লেখ্য গত ১০ মে মহেশপুরের মাটিলা সীমান্ত থেকে নাটোরের মোঃ নুর হোসেন (৫০), মোঃ রহিদুল শেখ (৩৮), মোঃ হোসেন শেখ (৪৫), মোঃ বুলবুল শেখ (৩২), মোঃ বিনত খান (৩৬), মোঃ শাকিরুল হোসেন (১৮), মোঃ নিয়াজুল ইসলাম (৩৮), মোঃ ইয়াহিয়া খান (৩৪), মোঃ ফরিদ সরদার (৪২), মোঃ নয়ন শেখ (৪০), মোঃ খায়রুল সরদার (৩০), মোঃ মোক্তার (৫১), মোঃ আলমগীর হোসেন (৪২), মোঃ বিপুল শেখ (২৯), মোঃ জাকারিয়া মাসদ রানা (৩৯), মোঃ অলিয়ন ইসলাম (৩৪), মোঃ রকেট শেখ (৩০), লক্ষীপুর জেলার মোঃ সাগর (১৮) এবং বরিশাল জেলার মোঃ রফিকুল ইসলাম (৩২) কে অবৈধ ভাবে ভার তেকে বাংলাদেশে প্রবেশের সময় বিজিবি আটক করে। একই দিন মহেশপুর সীমন্তবর্তী বাশবাড়িয়া গ্রাম থেকে আটক হয় আরো ৮ জন। এদের মধ্যে খুলনার মোঃ আজিজ মোল্লা (১৯), মোছাঃ আদরী (৩৮), মোছাঃ মনি (২৬), বাগেরহাটের মোঃ মহসিন (৩৯), ফরিদপুর জেলার বাসিন্দা মোঃ এনামুল মোল্লা (২৩), নড়াইল জেলার মোঃ মহিত শেখ (৪৫), যশোর জেলার মোছাঃ তানিয়া খাতুন (৩০), নরসিংদি জেলার মোছাঃ চম্পা বেগম ও অবৈধ পারাপারে নিয়োজিত দালাল মহেশপুরের মাইলবাড়িয়া গ্রামের মোঃ সাদ্দাম হোসেন (২৬)।