December 4, 2021

Jagobahe24.com

সত্যের সাথে আপোসহীন

রংপুরে মাদরাসা শিক্ষক নেতা মাওলানা নুরুল আবছার দুলালের কুলখানী অনুষ্ঠিত

রংপুরে মাদরাসা শিক্ষক নেতা মাওলানা নুরুল আবছার দুলালের কুলখানী অনুষ্ঠিত

রংপুরে মাদরাসা শিক্ষক নেতা মাওলানা নুরুল আবছার দুলালের কুলখানী অনুষ্ঠিত

রংপুর॥
বাংলাদেশ স্বতন্ত্র এবতেদায়ী মাদরাসা এমপিওভূক্তিকরণ আন্দোলনের অন্যতম নেতা, সংগঠনের রংপুর বিভাগীয় ও জেলা সভাপতি, একাধিক শিক্ষা ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা, প্রধান শিক্ষক ও রংপুর নগরীর তামপাট এলাকার বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী, সমাজসেবক মাওলানা নুরুল আবসার দুলাল এর রুহের মাগফেরাত কামনায় কুলখানী উপলক্ষে দোয়া ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল সোমবার নগরীর ৩২ নং ওয়ার্ডের আরাজী তামপাটে মরহুমের নিজ বাসভবনে পরিবারের পক্ষ থেকে রুহের মাগফেরাত কামনায় এ দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়। এতে রংপুর বিভাগের বিভিন্ন এলাকার এবতেদায়ী মাদরাসার শিক্ষক, সাংবাদিক, রাজনৈতিক সামাজিক ও পেশাজীবি সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ছাড়াও শুভানুধ্যায়ী আত্মীয় স্বজন এবং গ্রামবাসীরা উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য গত ৯ নভেম্বর শিক্ষানুরাগী মাওলনা নুরুল আবছার দুলাল রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেছেন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, ২ ছেলে ও ১ মেয়ে সন্তানসহ হাজার হাজার সহকর্মী রেখে মারা যান।
পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, ১৯৬৫ সালের ৩ রা মার্চ তিরি আরাজী তামপাট এলাকার সম্ভ্রান্ত পরিবারের জন্ম গ্রহন করেন মাওলনা নুরুল আবছার দুলাল। তার পিতা ছিলেন তামপাট-মাহিগঞ্জ অঞ্চলের বিশিষ্ট ধান চাল ব্যবসায়ী, ধর্মীয় ও সামাজিক ব্যক্তিত্ব মরহুম নুর মোহাম্মদ মিয়া। তবে তিনি নগদ ব্যপারী নামে পরিচিত। দুলাল বড় রংপুর কামিল মাদরাসা থেকে ইসলামি শিক্ষার সর্বোচ্চ ডিগ্রী নিয়ে সামজিক ও ইসলামিক শিক্ষা সম্প্রসারণে অংশ নেন। তিনি ছিলেন আরাজী তামপাট পুর্ব পাড়া জামে মসজিদ. ঈদগাহ মাঠ ও মক্তবের প্রতিষ্ঠাতা। ছিলেন এই মসজিদের সাবেক ইমাম। এছাড়াও তিনি ছিলেন আরাজি তামপাট পুরাতন কেন্দ্রিয় জামে মসজিদের সাবেক খতিব,জিয়াতপুকুর দাখিল মাদরাসার প্রতিষ্ঠাতাকালীন বইদাতা, গঙ্গাচড়ার মৌভাষা অটিজম ও বৃদ্ধিপ্রতিবন্ধি স্কুলের সাবেক সদস্য, রংপুর জেলা ইমাম সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক, মুন্সিপাড়া মাওলানা কেরামত আলী একাডেমির আজীবন সদস্য,বাংলাদেশ এবতেদায়ী মাদরাসা শিক্ষক সমিতির প্রতিষ্ঠাকালীন সহ-সভাপতি। অধ্যয়নের পরেই বিএডিসি, বিভিন্ন প্রাইমারী স্কুল ও প্রতিষ্ঠানে চাকুরী হলেও গ্রামের মানুষের কথা চিন্তা করে সেই সব চাকুরীতে যাননি। নিজেই মসজিদ ও মাদরাসা প্রতিষ্ঠা করে সেখানে দায়িত্ব পালন করেন। হাজার হাজার ছাত্রী-ছাত্রীকে শিক্ষা দান করেন। তিনি এবতেদায়ী মাদরাসাকে প্রাথমিক শিক্ষার সাথে সমমানের জন্য দেশব্যপি আন্দোলন গড়ে তোলেন। সারা দেশের প্রতিটি জেলা-উপজেলায় গিয়ে ইবতেদায়ী শিক্ষকদের ঐক্যবদ্ধ করেন। মৃত্যুর সময় তিনি বাংলাদেশ এমপিওভূক্ত স্বতন্ত্র এবতেদায়ী মাদারাসা শিক্ষক পরিষদ রংপুর বিভাগীয় ও জেলা সভাপতি, জমিয়াতুল মুদাররেসিন রংপুর মহানগর শাখার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবং জাতীয়তাবাদি ওলামাদলের মহানগর কমিটির সিনিয়র যুগ্ম আহবায়কের দায়িত্ব পালন করেছিলেন। এছাড়াও তিনি ছিলেন হারাগাছ সোনাতন দাখিল মাদরাসার সাবেক সিনিয়র শিক্ষক ছিলেন। আরাজি তামপাট একরামিয়া এবতেদায়ী মাদরাসার প্রতিষ্ঠাতা করে সেখানে মৃত্যুর আগ পর্যন্ত প্রধান শিক্ষক ছিলেন। তিনি রংপুর বিভাগের বিভিন্ন ইবতেদায়ী মাদরাসা প্রতিষ্ঠার সময় অবদান রাখেন। এছাড়াও বিভিন্ন সামাজিক ও ধর্মীয়, ক্রীড়া প্রতিষ্ঠানের সাথে জড়িত ছিলেন।