October 20, 2021

Jagobahe24.com

সত্যের সাথে আপোসহীন

হরিণাকুন্ডুতে বেধড়ক পিটানোর পর হাসপাতালে কাতরাচ্ছেন কৃষক, পুলিশ বলছে তদন্ত করে ব্যবস্থা

হরিণাকুন্ডুতে বেধড়ক পিটানোর পর হাসপাতালে কাতরাচ্ছেন কৃষক, পুলিশ বলছে তদন্ত করে ব্যবস্থা

হরিণাকুন্ডুতে বেধড়ক পিটানোর পর হাসপাতালে কাতরাচ্ছেন কৃষক

ঝিনাইদহঃ
ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডু উপজেলার ভায়না গ্রামে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে মসলেম উদ্দীন নামে এক কৃষককে বেধড়ক পিটিয়ে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তিনি ভায়না ইউনিয়নের ভায়না গ্রামের মৃত তসলেম উদ্দিনের সেজো ছেলে। বৃহস্পতিবার বিকেলে কৃষক মসলেমের খেসারী ক্ষেত দেখতে যায়। এ সময় ভায়না গ্রামের কুঠি মাঠে আখের মন্ডলের ছেলে সেকম মন্ডল, তৈয়ব আলীর ছেলে আনিস, কোরবারসহ অজ্ঞাত সন্ত্রাসীরা মসলেমকে মারধর করে। আহত অবস্থায় তাকে হরিণাকুন্ডু হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় হরিণাকুন্ড থানায় লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেন আহত ব্যক্তির ভাতিজা সাদ্দাম হোসেন। এ ব্যাপারে হরিণাকুন্ডু উপজেলার জোড়াদাহ ক্যাম্প ইনচার্জ এসআই মিঠু সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আমরা অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে আইনানুগ ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে। এদিকে থানায় অভিযোগ দেওয়ার কারণে আসামী কোরবান ও অনিস আহত মসলেমের বড় ভাই মহসিন ও ভাতিজা সাদ্দাম হোসেনকে হুমকী দেওয়া হচ্ছে। শনিবার সকালে সাদ্দামের বড় চাচি রিজিয়া খাতুন ও তার মা রওশন আরাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপানোর হুমকী দেয় আনিস ও কোরবান। হামলার আশংকায় পরিবারটি ভীত সন্ত্রস্ত হয়ে আছে। এ ব্যাপারে শনিবার বিকালে সাদ্দাম হোসেন হরিণাকুন্ডু থানায় জিডি করতে গেলে তাকে ফিরিয়ে দেন ডিউটি অফিসার। ভায়না গ্রামের সেকম মন্ডল এ বিষয়ে মোবাইলে জানান, ধাক্কাধাক্কির এক পর্যায়ে মসলেম পড়ে গিয়ে সামান্য আঘাত লেগেছে। তবে চিকিৎসকদের ভাষ্যমতে মসলেমের শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তাকে লাঠি দিয়ে বেধড়ক পেটানো হয়েছে।