February 25, 2024
অপরাধ

ফুলবাড়ীর রাজারামপুর সরফ উদ্দীন উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র॥

ফুলবাড়ী, দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ
দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলার সুনামধন্য রাজারামপুর সরফ উদ্দীন উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও বিদ্যালয়ের বিরুদ্ধে চলছে ষড়যন্ত্র। রাজারামপুর সরফ উদ্দীন উচ্চ বিদ্যালয় নিয়ে এক শ্রেণির অর্থ লোভীরা বিদ্যালয়ের ভাবমূর্তি নষ্ট করার জন্য ও প্রধান শিক্ষক কে সরিয়ে দেওয়ার জন্য উঠে পড়ে লেগেছে। এমন কী প্রধান শিক্ষক সহ বিদ্যালয়ের অন্যান্য শিক্ষক ও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বিরুদ্ধেও উঠে পড়ে লেগেছে তারা হয়রানী ও ভাবমূর্তি নষ্ট করার জন্য। শেখ রাসেল ল্যাপটপ বিক্রির বিষয়ে যে অভিযোগ উঠেছে তা সত্য নয়। ২৪/১০/২০১১ ইং সালের শিক্ষা মন্ত্রনালয় থেকে মিনিষ্ট্রি ওডিট হয়। সেই অডিটে বিদ্যালয়ের প্রশংসা করেন অডিট কমিটি। ফুলবাড়ী উপজেলা রাজারামপুর সরফ উদ্দীন উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আব্দুর রাজ্জাক মন্ডল অভিযোগ করে বলেন। আমার বিরুদ্ধে ২টি ল্যাপটপ বিশাল আকৃতির টুলবক্স ও টুলবক্স বিক্রির টাকা আত্মসাৎ এবং বিদ্যালয়ের ২ কোটি ২০ লক্ষ টাকা আত্মসাৎ এর কথা বলা হয়েছে। এছাড়াও ২০/১০/২০২১ ইং তারিখে কম্পিউটার ল্যাব অপারেটর, টেড এ্যাসিটেন্ট, আয়া, পরিচ্ছন্নতা কর্মী পদে নিয়োগের জন্য ৫০ জনের কাছে ঐ ২ কোটি ২০ লক্ষ টাকা নেওয়া হয়েছে। এই ঘটনার কোন প্রমান নাই। পরুষ উত্তম, সজিব, মোঃ মমিন, আমির হামজা, মোঃ আইনুল চৌধুরী, মোঃ আব্বাস আলী, মোঃ সোহেল রানা, ফারহানা খাতুন, মোঃ সোহাগ এই ৯ জনের নাম উল্লেখ্য করা হয়েছে তাদের কাছ থেকে কোন প্রকার অর্থ গ্রহণ করা হয় নি। এ ছাড়া ৯ জন শিক্ষক ২ জন অফিস সহায়ক নিয়োগ দিয়ে ১ কোটি টাকা আত্মসাৎ করা হয়েছে এই সব শিক্ষকদের কে বিধি মোতাবেক স্কুল কমিটি নিয়োগ দিয়েছে। যাদের মধ্যে শ্যামল চন্দ্র রায়, মজিদা বেগম, প্রিতি রানী সরকার, মনোরঞ্জন বর্মন, বেলাল মন্ডল, সামিদুল ইসলাম, আজাহার আলী সরদার, প্রদীব চন্দ্র রায়, বিদ্যুৎ কুমার মন্ডল, মোঃ শাকিল চৌধুরী ও আবুল কালাম। এরা বর্তমান বিদ্যালয়ে কর্মরত রয়েছেন। রাজারামপুর গ্রামের মরহুম নুরুল হুদা চৌধুরীর মোহাম্মাদ আলী চৌধুরী প্রধান শিক্ষক আব্দুর রাজ্জাক এর বিরুদ্ধে যে অভিযোগ উপস্থাপন করেছেন তা কোন ভাবে সত্যতা মেলেনি। ভূক্ত মোঃ মমিন, আমির হামজা ও আব্বাস আলী, ফারজানা খাতুন এর সাথে যোগাযোগ করলে তারা জানান, নিয়োগের বিষয়ে আমরা কোন অর্থ প্রধান শিক্ষককে দেই নি। যারা এই অভিযোগ করেছে তা সত্য নয়। বিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিষয়ে দূর্নীতি তুলে ধরে একটি মহল বিদ্যালয়ের ভাবমূর্তি নষ্ট করছেন। তারা নিজেরা ফায়দা লুটার জন্য প্রধান শিক্ষক এর বিরুদ্ধে উঠে পড়ে লেগেছে। এ বিষয়ে রাজারামপুর সরফ উদ্দীন উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুর রাজ্জাক এর সাথে কথা বললে তিনি জানান, আমাকে বিদ্যালয় থেকে সরিয়ে দেওয়ার জন্য এই বিভিন্ন মিথ্যা অভিযোগ উপস্থাপন করেছে। এই অনিয়ম দূর্নীতির সাথে আমি কোন ভাবে জড়িত নই। এমন দূর্নীতি এই বিদ্যালয়ে হয় নি। অভিযোগকারী মোহাম্মদ আলী চৌধুরীর ০১৮২৩১২৫০৮৬ মোবাইল নম্বর এ যোগাযোগ করা হলে তাকে পাওয়া যায় নি। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুর রাজ্জাক জানান, আমার বিরুদ্ধে ও বিদ্যালয়ের বিরুদ্ধে যারা ষড়যন্ত্র করছে তাদের বিরুদ্ধে আমি আইনের আশ্রয় ও সংবাদ সম্মেলন করব।

Jamie Belcher

info@jagobahe24.com

News portal manager

Follow Me:

Comments